মেইন ম্যেনু

‘সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিভেদ নেই’

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার বলেছেন, ‘সন্ত্রাসী ও জঙ্গীদের সাথে কোন ধরনের আপোষ নেই। এ লড়াইয়ে আমাদের মধ্যে কোন বিভেদ নেই।’

ঐক্যবদ্ধভাবে এ অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। দেশব্যাপী চলমান এই আক্রমণ মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রত্যেক মানুষের বিরুদ্ধে কোন মুষ্টিমেয় মানুষ বা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নয়।

সোমবার বিকেলে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।

প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপনের হত্যাকারী এবং প্রকাশক আহমেদুর রশীদ টুটল, ব্লগার রনদীপম বসু ও তারেক রাহিমের হত্যাচেষ্টাকারীদের গ্রেফতাার ও বিচার এবং জনগণের জানমালের নিরাপত্তার দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

সমাবেশ শেষে একটি আলোর মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শাহবাগ থেকে যাত্রা শুর করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি অতিক্রম করে শহীদ মিনারে যায়। সেখানে শহীদ মিনারের বেদীতে প্রজ্বলিত মোমবাতিগুলো সারি সারি সাজিয়ে রেখে তারা আবার শাহবাগে ফিরে আসেন।

মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকারের নেতৃত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন উদীচীর সহ সাধারণ সম্পাদক সঙ্গীতা ইমাম, প্রকাশক রবীন খান, ভাস্কর রাশা, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি লাকী আক্তার, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি জনার্দন দত্ত নান্টু প্রমুখ।

ইমরান বলেন, আমরা বারবার বলেছি আমরা এমন একটা নিরাপদ রাষ্ট্র চাই যেখানে মানুষ স্বাধীনভাবে চলাচল করতে পারবে, নিজের মত প্রকাশ করতে পারবে। কিন্তু একটি অশুভশক্তি এ দেশকে অনিরাপদ হিসেবে প্রমাণ করতে লেখক-ব্লগার-প্রকাশকদের হত্যা করছে। পুলিশ হত্যা করছে। ভিন্নধর্মের মানুষের ওপর আক্রমণ করছে। যারাই তাদের সাথে দ্বিমত পোষণ করছে তাদের উপর আক্রমন চালাচ্ছে।

তিনি বলেন ,আমরা পরিষ্কার ভাবে বলতে চেয়েছি আমরা এই রাষ্ট্রকে একটি বিজ্ঞানমনষ্ক আধুনিক ও মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চাই। কখনোই কূপম-ক ও ধর্মান্ধ রাষ্ট্র হতে দিতে চাই না। এজন্য আমরা রাজপথে সংগ্রামে আছি। এ দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে চাইছি। আমাদের সংগ্রাম কোন ধর্ম কিংবা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নয়। আমাদের সংগ্রাম মানুষের জন্য একটি মানবিক রাষ্ট্র গঠনের জন্য।

তিনি আরো বলেন, যারা হত্যাকারী তারা শুধু মানুষ হত্যা করে চলেছে। তারা কথা বলতে চায় না, আলোচনা চায় না। শুধুমাত্র হত্যার পথ তারা বেছে নিয়েছে। তারা প্রতিবাদ করতে চায় না। তারা শুধু হত্যা করতে চায়।

রাজন-রাকিব হত্যাকাণ্ডের ন্যায় বিচার নিশ্চিত হওয়ায় সাধুবাদ জানান ইমরান।

লাকী আক্তার বলেন, সরকার যদি চায় তাহলে কিন্তু মুক্তমনা মানুষদের ওপর যে আক্রমণ হচ্ছে সে চক্রকে গ্রেফতার করা সম্ভব। রাকিব-রাজন হত্যাকাণ্ডের বিচার ও তার শাস্তি কিন্তু এ কথাটাই প্রমাণ করে দেয়।

এদিকে চলমান আন্দোলনের কর্মসূচি হিসেব আগামী শুক্রবার বিকেল চারটায় শাহবাগে গণসমাবেশ করবে গণজাগরণ মঞ্চ।