মেইন ম্যেনু

সন্ধ্যার পর ঢাবি শিক্ষার্থীদের সোহরাওয়ার্দীতে যেতে মানা!

সন্ধ্যার পর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠছে। ছিনতাই-রাহাজানির অভিযোগ প্রায়ই শোনা যাচ্ছে। সন্ধ্যা পার হলেই পতিতাদের উপদ্রব তো রয়েছেই। প্রেমিক জুটিদের প্রতারণা করার পাশাপাশি তাদের ওপর যৌন সন্ত্রাসের অভিযোগ সম্প্রতি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে।

এসব অপ্রীতিকর ঘটনায় সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ বৃদ্ধি পাওয়ায় নড়েচড়ে বসেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সন্ধ্যার পরে তাদের শিক্ষার্থীদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অবস্থান না করার নির্দেশনা দিয়ে আনুষ্ঠানিক নোটিশ জারি করতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। ইতোমধ্যে হলে হলে প্রক্টরের স্বাক্ষরিত সতর্কীকরণ নোটিশ টানিয়ে দেয়া হয়েছে।

তবে অপ্রীতিকর ঘটনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দায়ী করার অভিযোগ মানতে নারাজ সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তারা বলছে, যদি কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকেও সে জন্য ওই ব্যক্তিদের শাস্তির আওতায় আনা হোক। তাই বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীদের ওপর এর দায় চাপানো ঠিক হচ্ছে না। দেখা যাচ্ছে বহিরাগতরা এসব অপকর্ম করলেও কখনো কখনো শিক্ষার্থীদের দায়ী করা হচ্ছে।

গত ২৫ আগস্ট থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মোহাম্মদ মুহসীন হলে এমন নির্দেশনা চোখে পড়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর স্বাক্ষরিত একটি নোটিশে বলা হয়েছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীর অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, সন্ধ্যা ৬টার পর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ভেতরে কেউ অবস্থান করলে ও কোনো ধরণের সমস্যায় পড়লে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনো ধরণের দায়দায়িত্ব গ্রহণ করবে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, “বেশ কিছুদিন ধরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে। তাই আমরা এমন সিদ্ধান্ত নেয়ার চিন্তা করছি। তবে এখনো সময় নির্ধারণ করা হয়নি।”