মেইন ম্যেনু

সফল মানুষেরা দক্ষতা বাড়াতে প্রতিদিন করেন যে কাজগুলো

জীবনের প্রতিটা ক্ষেত্রে সফল হতে চায়না এমন মানুষ নেই বললেই চলে। প্রত্যেকেরই ইচ্ছে থাকে সফল মানুষের তালিকায় নাম লেখানোর। কিন্তু যারা এর ভেতরেই সফল হয়ে গিয়েছেন, যাদেরকে নিজেদের চলার পথে আদর্শ বলে মানে সবাই তারা ঠিক কি চান? কি করেন তারা রোজ? ভাবছেন, সাফল্যে চূড়ায় উঠে যাওয়ার পর আর কিইবা কাজ থাকতে পারে মানুষের! কিন্তু না! সফলতা পাওয়াটা যেমন কষ্টের, সেটাকে টিকিয়ে রাখাটাও ঠিক ততটাই কষ্টের। আর তাই নিজেদের সাফল্যকে টিকিয়ে রেখে তার পাশাপাশি দক্ষতার জায়গাটাকে আরো পাকাপোক্ত করতে রোজই কিছু কাজ করে থাকেন সফলেরা। আসুন জেনে নিই সেগুলো।

১. তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠা

খুব সকাল সকালই ঘুম থেকে উঠে পড়েন সফল মানুষেরা। আর এর পরপরই সেরে ফেলেন গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো। গবেষণায় জানা যায় ঘুম থেকে ওঠার পরবর্তী ৪ থেকে ৬ ঘন্টা মানুষের মস্তিষ্ক সবচাইতে ভালো কাজ করে। তাছাড়া, সকাল সকাল শান্ত পরিবেশে সদ্যঘুম থেকে ওঠা মস্তিষ্ক কাজ করতেও পারে খুব তাড়াতাড়ি।

২. ব্যায়াম করা

ভাবছেন সফল হতে কেবল মাথা খাটালেই হয়? না! সফলতা পেতে আর ধরে রাখতে হলে কেবল মাথার নয়, শরীরের ব্যায়ামটাও খুব জরুরী। এতে করে কেবল শারিরীক সৌন্দর্যই বাড়ে না। বেড়ে যায় নতুন কিছু ভাবার ক্ষমতাও। এই যেমন, মার্ক জুকারবার্গ সপ্তাহে পাঁচবার ব্যাক্তিগত প্রশিক্ষকের কাছে শরীরচর্চা করে থাকে। জুকারবার্গের মতে এটা কেবল তার শরীরকেই ভালো রাখতে সাহায্য করে না, ব্যাবসায়িক নানারকম চিন্তা করতেও সাহায্য করে।

৩. পরিকল্পনা করা

সফল মানুষেরা ঘুমের আগে আর ঘুম থেকে ওঠার সময় দিনের কাজগুলোর একটা ছক মনে মনে এঁকে ফেলেন। বেঞ্জামিন ফ্রাঙ্কলিন সবসময়ই দিনের শুরুতে আয়নার সামনে দাড়াতেন আর নিজেকে প্রশ্ন করতেন আজকের দিনে ঠিক কোন কাজটা তিনি করতে যাচ্ছেন সেটা নিয়ে। এরকম পরিকল্পনা সবসময়ই মানুষকে একটু হলেও অন্যদের চাইতে আগিয়ে রাখে।

৪. শখকে সময় দেওয়া

সফল মানুষেরা কেবল নিজেদের কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকেননা। সময় দেন নিজেদের শখকেও। এই যেমন, পৃথিবীর অন্যতম ধনী মানুষ ওয়ারেন বাফেট নিজের মিটিং এর ভেতরে বসেও পছন্দের উকুলেলে খেলা খেলেন। ভাবছেন, এটা নিছক ছেলেমানুষী? কিন্তু এই ছেলেমানুষীটুকুই একজন মানুষকে রাখে অন্যসব ঝামেলা থেকে অনেকটা দূরে আর মনকে এনে দেয় অন্যরকম খুশি।

৫. কর্মঠ থাকা

বিখ্যাত ভোগ ম্যাজিনের সম্পাদক অ্যানা উইন্টরের কথাই ধরা যাক। প্রদিন তিনি কমপক্ষে এক ঘন্টা সময় রাখেন টেনিস খেলার জন্যে। শুধু অ্যানা একাই নন, ভারতের ম্যারাথন দৌড়বিদ এবং চতুর্থ ধনী ব্যাক্তি রিচার্ড ব্রানসনও পছন্দ করেন ঘুড়ি ওড়াতে। না, তারা কেবল খেলার জন্যে বা সময় কাটানোর জন্যেই এই কাজগুলো করেননা। অন্যান্যদের মতন এই সফল মানুষেরাও জানেন যে একটি সম্পূর্ণ জীবনের অন্যতম অংশ হচ্ছে কেবল মানসিক ভাবেই নয়, শারিরীকভাবেও পুরোপুরি কর্মঠ থাকা।

৬. শিখতে থাকা

সফল মানুষেরা কখনোই নিজেদেরকে জ্ঞানী ভাবেননা। বরং রোজই নতুন নতুন ভাবে নতুন কিছু শেখার চেষ্টা করেন তারা। কোন কিছুকেই ফেলনা বলে উড়িয়ে দেননা। এতে করে যে কেবল তাদের জ্ঞানের ভান্ডার ভরে তা নয়, বাড়তে থাকে মনের বিশালতাও।

৭. বিশ্লেষণ করা

সফল মানুষেরা রোজ ঘুমোতে যাওয়ার আগে নিজের সারাদিনের কাজগুলোকে বিশ্লেষণ করেন। আমি কি সব কাজ ঠিক মতন করতে পেরেছি? কি করা বাকি আছে? কেমনটা করা উচিত ছিল? এমন বিশ্লেষণ কেবল তাদেরকে সামনের দিনের কাজগুলোকে করার অনুপ্রেরণাই দেয়না, ধরিয়ে দেয় নিজেদের ভুলগুলোকেও।

৮. যোগব্ব্যায়াম করা

সফল মানুষেরা নিজেদের জন্যে দিনের কিছুটা হলেও সময় বের করে যোগব্যায়াম করেন। এই যেমন করেন অপরাহ উইনফ্রে। তাও কাঁটায় কাঁটায় ২০ মিনিট! এই সামান্য সময়ের কাজটি কেবল কর্মক্ষমতাই বাড়ায় না, চাপ কমিয়ে শরীর ও মনকে ভালো রাখতে সাহায্য করে।

৯. পছন্দের মানুষের সাথে সময় কাটানো

সফল মানুষেরা খুব কম সময় অবসর হিসেবে পেলেও তারা অনেকেই এসময়টুকু কাছের মানুষদের সাথে কাটাতে পছন্দ করেন। তাদের মতে এই সামান্য গল্পগুজবই তাদেরকে শক্তি দেয় আরো অনেক কঠোর পরিশ্রম করার আর মানসিকভাবে শান্তিতে থাকার।

১০. পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমানো

এমনিতে সাধারণ মানুষেরা কিছুদিন প্রচন্ড রকম ঘুমিয়ে পরের কিছুদিন একেবারে না ঘুমিয়েই কাটান। অনেকের ঘুমানোর কোন নির্দিষ্ট সময় বাঁধা থাকেনা। ফলে তাদের কোন কাজই ঠিকঠাক মতন করা হয়ে ওঠেনা। কিন্তু সফল মানুষেরা প্রতিদিন ঠিক সময় মতন আর পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান।

তথ্যসূত্র- লাইফহ্যাকস
লিংক- http://www.lifehack.org/articles/communication/10-things-successful-peop…



« (পূর্বের সংবাদ)