মেইন ম্যেনু

‘সবকিছু ভালোর দিকেই যাচ্ছে’

জাতীয় দল অনুশীলন করছে; অথচ তার হাত-পা বাঁধা। এক বছরের বেশি সময় ধরে জাতীয় দলে খেলছেন মুস্তাফিজ।

কিন্তু এ চিত্র তার কাছে পুরাতন বলা যায়। এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অনেকটা সময় ইনজুরির কারণে জাতীয় দলে থেকেও খেলতে পারেননি।

এবার ইনজুরির কারণে পুরোপুরি দর্শক বিস্ময়কর এ পেসার। কাঁধের ইনজুরিতে পরার পর অস্ত্রোপচার করিয়েছেন। কমপক্ষে চার মাস মাঠের বাইরে থাকতে হবে সাতক্ষীরার এ তারকাকে।

অবশ্য পূর্নবাসনের ছয় সপ্তাহ শেষ হতে চলল। হাতের স্ক্রেপ ব্যান্ডেজও খুলে ফেলেছেন। অনেকটা স্বাভাবিক চলাফেরারও শুরু করেছেন।

এখন শুধু বল হাতে নিয়ে দৌড়ানোর পালা! তবে সহসাই পছন্দের কাজটি করতে পারছেন না মুস্তাফিজ। ফিজিওর ভাষ্য অনুযায়ী বল হাতে দৌড়ানোর জন্য মাস খানেক অপেক্ষা করতে হবে।

কিন্তু সোমবার শারীরিক উন্নতির সুখবরটা মুস্তাফিজ নিজেই দিয়েছেন গণমাধ্যমকে, ‘আলহামদুলিল্লাহ, এখন অনেক ভালো আছি। অস্ত্রোপচারের পর ডাক্তার দেখেছিল। ৬ সপ্তাহর মত শেষ হয়েছে। যেভাবে বলছে সেভাবেই কাজগুলো করছি। সবকিছু ভালোর দিকেই যাচ্ছে।’

সতীর্থরা যখন অনুশীলনে ব্যস্ত, নিজের পরিকল্পনা নিয়ে ব্যস্ত তখন মুস্তাফিজের মাথায় ভিন্ন চিন্তা, পরিকল্পনা। সময়টা খুব কঠিন হলেও পূর্বের অভিজ্ঞতা থাকায় মানিয়ে নিতে কষ্ট হচ্ছে না মুস্তাফিজের। এক প্রশ্নের জবাবে মুস্তাফিজ বলেন, ‘পূর্নবাসন প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিজ্ঞতা আছে। তাছাড়া অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে ইনজুরিতে পরে এই প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে গিয়েছি। জাতীয় দলের হয়ে সবাই খেলছে আমি পারছি না। মিস তো অবশ্যই করছি। ভালো খারাপ মিলিয়েই থাকবে।’

নিউজিল্যান্ড সিরিজে ফিরতে মুখিয়ে আছেন মুস্তাফিজ। সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছেন ২১ বছর বয়সি এ পেসার। তিনি বলেন, ‘সুস্থ হওয়ার পর আশাতো থাকবেই ওখানে খেলি। দেশে সফল হয়েছি, চেষ্টা করব দেশের বাইরে খেললে সেখানেও সফল হতে।’