মেইন ম্যেনু

সবচেয়ে নির্বোধ প্রধানমন্ত্রী মোদি!

বিশ্বের শীর্ষ ১০ অপরাধীর পর এবার সবচেয়ে নির্বোধ প্রধানমন্ত্রীর হিসেবে নরেন্দ্র মোদিকে আখ্যায়িত করল গুগল।

ইন্টারনেটে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগলে ‘ওয়ার্ল্ড’স মোস্ট স্টুপিড প্রাইমমিনিস্টার’ লিখে সার্চ দিলে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির ছবি ভেসে উঠছে কম্পিউটারের মনিটরে। মোদির সঙ্গে আসছে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, অস্ট্রেলিয়ার টনি অ্যাবোট, আধুনিক সিঙ্গাপুরের জনক প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী লু কুয়ান, মালয়েশিয়ার জনক মাহাথির মোহাম্মদের ছবিও। তালিকায় আছেন গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপ্রাস, থাইল্যান্ডের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অভিজিৎ ভেজ্জাজিভা, নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জন কি প্রমুখ।

এক মাসে আগে ‘ওয়ার্ল্ড’স টপ টেন ক্রিমিনাল’ লিখে গুগলে সার্চ দিলে, নরেন্দ্র মোদির নাম ও ছবি দেখাচ্ছিল। ওই তালিকায় মাইক্রোসফটের প্রধান ও বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি বিল গেইটস, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরিবিন্দ কেজরিওয়ালের ছবিও দেখাচ্ছিল গুগল। সন্ত্রাসী দাউদ ইব্রাহিম, আমেরিকার গ্যাংস্টার আল ক্যাপওয়ানের ছবিও আসছিল। এ নিয়ে হইচই হলে, দুঃখপ্রকাশ করে ক্ষমা চায় গুগল কর্তৃপক্ষ।

তবে গুগল যে ইচ্ছা করেই বা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এ সব করছে না সেটা নিশ্চিত। বিষয়টি প্রকাশিত হওয়ার পর গুগলের এক মুখপাত্র সংবাদমাধ্যমকে এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু বলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

তবে গতমাসে যখন বিশ্বের শীর্ষ সন্ত্রাসী তালিকায় মোদির নাম আসছিল সেটা নিয়ে বিবৃতি দিয়েছিল এ আইটি জায়ান্ট। বিশেষ ত্রুটির কারণে অনাকাঙ্ক্ষিত ওই ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে গুগল।

এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, ‘এটা একটি আমাদের সমস্যা। এটা গুগলের মতামতের প্রতিফলন নয়। মাঝে মাঝে বিশেষ ছবি খোঁজার সময় ইন্টারনেটে থাকা বিস্ময়কর তথ্য হাজির হতে পারে। যেকোনো ধরনের দ্বিধা, ভুল বোঝাবুঝির জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী। এ রকম অনাকাঙ্ক্ষিক বিষয় এড়াতে আমরা আমাদের গাণিতিক পরিভাষা উন্নতির চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।’

তথ্যসূত্র : হাফিংটন পোস্ট, দি এক্সপ্রেস, এনডিটিভি