মেইন ম্যেনু

”সবাই যখন ঘুমিয়ে থাকে আমরা জেগে থাকি জনগনকে সেবা দেয়ার জন্য”

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কমিশনার আব্দুল জলিল মন্ডল বলেছেন, ”রাতের অন্ধকারে সবাই যখন ঘুমিয়ে থাকে, তখন আমরা জেগে থাকি জনগনকে সেবা দেয়ার জন্য। পুলিশ বাহিনী এখন আর নিপীড়ানের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে না ।এখন তারা জনগণের সেবক ”।

মঙ্গলবার সকালে নগরীর দামপাড়া পুলিশ লাইন শ্যুটিং ক্লাবে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের আয়োজনে এক মত বিনিময় সভায় সিএমপি কমিশনার এ কথা বলেন।

পুলিশ রিফর্ম প্রোগ্রামের (পিআরপি) কো-অর্ডিনেটর ফৌজিয়া আক্তার ইভা বলেন, ‘পুরো পৃথিবীই নারীর জন্য যুদ্ধ ক্ষেত্র। দেশে প্রতি দুইজন নারীর মধ্যে প্রতিনিয়ত একজন নির্যাতনের শিকার হন। নারীদের সুরক্ষায় নারী বান্ধব পুলিশ বাহিনী প্রয়োজন। সব নারীর জন্য নিরাপদ ঘর চাই।’

মত বিনিময় সভায় ভিকটিম সাপোর্ট স্পেশালিস্ট পুলিশ সুপার শামীমা আক্তার বলেন, ‘২০০৯ সাল থেকে পিআরপির আওতায় নারী ও শিশু নির্যাতন রোধে কাজ করছে পুলিশ। সেআলোকে ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের আটটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার গড়ে তোলা হয়েছে।’

12194265_1028511930513214_837004802_o

ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে যে কোনো ভিকটিম ৫ দিন থাকতে পারেন জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিটি ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারে ১৫ টি বিছানা রয়েছে।’

অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক ও সিএমপি’র ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের ইনচার্জ সিনিয়র সহকারী কমিশনার মাহমুদা বেগম বলেন, ‘চলতি বছর আমরা শতাধিক ভিকটিমকে আইনী সহায়তা দিয়েছি । চট্টগ্রামে ১৫ টি এনজিও প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে অধিকাংশ ভিকটিমকে পূণর্বাসনের ব্যবস্থা করা ছাড়াও অনেক ভিকটিমকেই প্রয়োজনীয় কাউন্সেলিংয়ের মাধ্যমে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

পুলিশ রিফর্ম প্রোগ্রামের (পিআরপি) ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) একেএম শহিদুর রহমান , অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ) দেবদাস ভট্টাচার্য , চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমানসহ চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরগণ।