মেইন ম্যেনু

“সমাজজীবনে শঙ্কা, অভাব এবং ভয় ঘুচাতে হলে মানবাধিকারের সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে”

‘মানবাধিকার সঠিকভাবে রক্ষিত হলে সমাজজীবনে শঙ্কা, অভাব এবং ভয় ঘুচে যাবে। কিন্তু দেশের সার্বিক পরিস্থিতি তার প্রমাণ দেয় না। তাই তরুণদের সংগঠিত হয়ে সমাজের ভেদাভেদ বৈষম্য দূর করে মানুষের মানবাধিকারকে নিশ্চিত করতে হবে। আর এতে দিক নির্দেশনা দিবে তার বিবেক।’

রাজশাহী ইউনিভার্সিটি অ্যাসোসিয়েশন অব ল ফাইন্ডার্স (রুয়ালফ) আয়োজিত এক কর্মশালায় আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক সুলতানা কামাল এ কথাগুলো বলেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাবির ডীনস কমপ্লেক্সে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দিন, প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুলতানা কামাল এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন রাবির আইন অনুষদের অধিকর্তা বিশ্বজিত চন্দ।

বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি : আইন শিক্ষার্থীদের করণীয় শীর্ষক কর্মশালায় সুলতানা কামাল বলেন, ‘দেশের বর্তমান মানবাধিকার পরিস্থিতি কেমন তা বোঝার জন্য সংবাদপত্রের পাতায় চোখ রাখলেই বোঝা যায়। প্রতিদিনই ঘটছে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড। তাই আইনের শিক্ষার্থীদের আইনের দিক নির্দেশনা এবং মূল্যবোধ ও বিবেককে কাজে লাগিয়ে মানুষের মানবাধিকার রক্ষায় কাজ করতে হবে। দেশকে দুর্বৃত্তের হাত থেকে রক্ষা করতে শেখা মানবাধিকারকে জীবনে প্রয়োগ করতে হবে। এ ছাড়া মুক্ত আলোচনা পর্বে তিনি মানবাধিকার বিষয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। অনুষ্ঠান শেষে রুয়ালফের পক্ষ থেকে তাকে সন্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়।