মেইন ম্যেনু

সম্পর্কের যে ৫ টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় পুরুষেরা শিখতে পারেন নারীদের কাছ থেকে

পুরুষেরা যতোই বলুক না কেন নারীরা ছলনাময়ী, রহস্যময়ী ইত্যাদি কিন্তু বাস্তবে সম্পর্কের ক্ষেত্রে দায়িত্বশীল পুরুষের তুলনায় নারীকেই বেশি হতে দেখা যায়। গবেষকদের তথ্য অনুযায়ী পুরুষেরা নারীদের চাইতে সম্পর্কে ধোঁকা দেয়ার দিক দিয়ে অনেক বেশিই এগিয়ে রয়েছেন। সে যাই হোক না কেন, সম্পর্ক একটু নড়বড়ে হলে প্রথম আঙুল কিন্তু নারীদের দিকেই যায় তারা যতোই সম্পর্কের প্রতি সৎ থাকুক না কেন। নারীরা যদি সত্যিই ভালোবাসেন কাউকে তাহলে শেষ পর্যন্ত সেই ভালোবাসার জন্য লড়ে যেতে প্রস্তুত থাকেন। এমনকি সম্পর্ক সঠিক ভাবে চালনার জন্য নারীরা এমন কিছু কাজ করেন এবং ছাড় দিয়ে দেন যা পুরুষেরা একেবারেই দিতে পারেন না। কিন্তু সত্যিই সম্পর্কের মূল্য বুঝতে এবং সম্পর্কের মধুরতা ধরে রাখতে নারীরা যা করেন তা প্রশংসনীয়। এই বিষয়গুলো একটু হলেও পুরুষের শিখে নেয়া উচিত নারীদের কাছ থেকে।

১) নিজের ইগো কীভাবে দূরে রাখা যায়

নারীরা যেখানে নিজের সম্পর্কের জন্য এবং ভালোবাসার জন্য অহরহ ছাড় দিচ্ছেন সেখানে পুরুষদের অনেককেই দেখা যায় নিজের পুরুষত্ব জাহির করতে নিজের ইগো ধরে রাখতে। যদি কম্প্রোমাইজ নারীরা করতে পারেন তাহলে কেন পুরুষেরা পারছেন না? একটু হলেও নিজের ভালোবাসার জন্য কম্প্রোমাইজ করার শিক্ষা নিন নারীদের কাছ থেকে।

২) কারো সাথে সত্যিকার অর্থে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হওয়া

গবেষকদের মতে পুরুষের মধ্যেই কমিটমেন্ট ফোবিয়া বেশি দেখা যায়, অর্থাৎ শুধুমাত্র একজনের সাথে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ বিষয়টি। নারীরা কারো সাথে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হলে নিজের সাধ্যমতো প্রতিজ্ঞা পালনের চেষ্টা চালিয়ে যান। পুরুষেরা নারীদের এই প্রতিজ্ঞা নিষ্ঠা শিখে নিতে পারেন সুন্দর একটি সম্পর্কের জন্য।

৩) সঙ্গীকে প্রাধান্য দেয়ার বিষয়টি

নারীদের কাছে অনেক সময় পরিবারের চাইতেও প্রথমে প্রাধান্য পায় প্রেমিক/স্বামী। কিন্তু অপরদিকে পুরুষের কাছে তার প্রেমিকা/স্ত্রীর গুরুত্ব আসে সবার শেষে। যদিও সকলেই একই ধরণের মনমানসিকতার নন, তারপরও এই ধরণের মানুষের সংখ্যাই বেশি। তাই পুরুষেরা একটু হলেও নারীর কাছ থেকে শিখে নিন সঙ্গীকে কীভাবে প্রাপ্য সম্মান দিতে হয়, গুরুত্ব দিতে হয়।

৪) দায়িত্বপালন করতে বলার আগে নিজেকে দায়িত্বশীল যেভাবে করতে হয়

পুরুষেরা শুধুই নারীদের কাছ থেকে আশা করেন, নারীটি স্ত্রী হোক বা প্রেমিকা হোক না কেন পুরুষের আশা থাকে পরিবার সামলানো থেকে শুরু করে তাকে সামলানো পর্যন্ত এবং নারীরা তা করেও থাকেন। কিন্তু পুরুষেরা চিন্তা করেন না, তারও কিছু দায়িত্ব রয়েছে। সুতরাং কাউকে দায়িত্বপালন করতে বলার আগে নিজেকে দায়িত্বশীল যেভাবে করতে হয় তায় শিখে নিন নারীর কাছ থেকেই।

৫) ভালোবাসার মানুষটিকে যেভাবে মাফ করে দেয়া যায়

অনেক সময় কষ্ট পেলেও নারীরা মুখে প্রকাশ করেন না, মনে রাখেন ঠিকই কিন্তু ক্ষমা করে দেন প্রেমিক বা স্বামীর ভুল যা পুরুষের মধ্যে একটু কমই দেখা যায়। নারীরা ‘যাকে ভালোবাসা যায় তাকে মাফ করে দেয়া সম্ভব’ নীতিতে বিশ্বাসী। অপরদিকে পুরুষেরা নিজেদের ইগো ধরে ক্ষমা না করাতেই বিশ্বাসী থাকেন বেশি। কিন্তু ভালোবাসার মানুষটির জন্য একটু হলেও এই ব্যাপারটি শিখে নিন নারীর কাছ থেকেই।

সূত্রঃ bollywoodshaadis