মেইন ম্যেনু

খালেদার জিয়ার গাড়িবহরে হামলা করেছে পুলিশ : বিএনপি

একুশের প্রথম প্রহরে ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানানো জন্য খালেদা জিয়ার গাড়িবহর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাওয়ার সময় পুলিশ ‘হামলা’ করেছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি। এতে দলটির অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী মারাত্মক আহত হয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে।

রোববার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন দলটির দফতরের দায়িত্বে থাকা যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিএনপি চেয়ারপারসনের শ্রদ্ধা নিবেদনের বিষয়ে তার সার্বিক নিরাপত্তা বিধান করতে পুলিশ ও র‌্যাব প্রধানদের কাছে দলের পক্ষ থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বিএনপি চেয়ারপারসন গুলশানের বাসভবন থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আসা পর্যন্ত পুলিশ বারবার বাধা দিয়েছে। গুলশানে তার বাসভবনের সামনেই পুলিশ ব্যারিকেড সৃষ্টি করে।’

রিজভী বলেন, ‘সব বাধা অতিক্রম করে বিএনপি চেয়ারপারসনের গাড়িবহর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের কাছাকাছি আসলে পুলিশ দুই জায়গায় ব্যারিকেড সৃষ্টি করে অপেক্ষমান বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর অতর্কিত আক্রমণ চালায়। এ ঘটনায় প্রায় ৫০ জনের অধিক বিএনপি নেতা-কর্মী মারাত্মকভাবে আহত হয়।’

খালেদা জিয়ার গাড়িবহর আটকে রাখা এবং নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান রিজভী।

হিংসাকে আওয়ামী লীগ পরম ধর্ম বলে মনে করে, এ মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘এরা হত্যা আর রক্তের উৎসরণের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্র ও মানুষের স্বাধীনতাকে সমাধিস্থ করে ফেলেছে। এখন কোথাও কোনো নিরাপত্তা নেই। অবস্থাদৃষ্টে মনে হয়- শাসকদলের অনুগ্রহের ছায়াতলেই এ দেশের মানুষকে বাঁচতে হবে।’

রিজভী অভিযোগ করেন, নোয়াখালী জেলার চাটখিল উপজেলায় একুশের রাতে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য বিএনপি নেতা আলমগীর হোসেন আগুনকে ‘আওয়ামী সন্ত্রাসীরা’ অতর্কিত আক্রমণ চালিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। তিনি নিহতের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানান।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলা, মনোনয়নপত্র ছিঁড়ে ফেলা, মনোনয়নপত্র কেনা ও জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে বাধা, বাড়িঘর লুট, প্রার্থীদের হুমকি, গ্রেফতার করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপির এই নেতা।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, অর্থনীতিবিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সালাম, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার, গণশিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, সহ-দফতর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি, সহ-শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব প্রমুখ।