মেইন ম্যেনু

সরকারের হাতেই থাক নগর সরকার: মেয়র আনিস

নগর সরকারকে রাজনৈতিক বিষয় হিসেবে উল্লেখ করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক বলেছেন, এটা নিয়ে তার কোনো স্বপ্ন নেই। এটা সরকারের হাতেই থাকুক।
শনিবার গুলশানে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান কার্যালয়ে কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও রেডিওর প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সময় এ কথা বলেন তিনি।
মতবিনিময় সভাই মেয়র নগর উন্নয়নে তার বাস্তবধর্মী পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন। এমনকি তিনি আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে প্রতিটি বাড়িতে ফুলের গাছ পৌঁছে দেওয়ার কথাও জানান।
নগর সরকারের বিষয়ে মেয়র বলেন, “এটা কমপ্লিকেটেড করে। সরকারের মধ্যে সরকার। এই দাবি হানিফ সাহেব শুরু করেছিলেন, কখনো সাড়া পাননি। এরপর যারা করেছেন, তারাও পাননি।” নগর সরকার দাবির বদলে বরং নিজেরা কাজের মধ্য দিয়ে শক্তিশালী হওয়ার পক্ষে মেয়র।
মেয়র বলেন, “আমাদের কাজ করতে করতে প্রমাণ করতে হবে শহরের এই দুর্বলতাগুলোর জন্য আমাদের শক্তিশালী করা দরকার। আমি বলেছি, আমাদের যদি ১০০ জন এনভায়রনমেন্ট পুলিশ দেয়, যা অনেক দেশে আছে, ঢাকা শহরের চেহারা বদলে দিতে পারি।”
নগর সরকারকে মুখ্য করতে চান না জানিয়ে মেয়র বলেন, “নগর সরকার, এটা একটা রাজনৈতিক বিষয়। সরকার তাদের হাত থেকে পুলিশকে কতটা ছাড়বে, ওয়াসাকে ছাড়বে কতটা। ৫৬টা অর্গানাইজেশন কাজ করে। এটাই যদি আমার মুখ্য হয়ে যায় তাহলে কাজ করতে পারব না।”
মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণের পর গত প্রায় নয় মাসে নিজের সফলতা ও আধুনিক ঢাকা নির্মাণে নানা পরিকল্পনা ও জবাবদিহির কথা তুলে ধরেন মেয়র।
ঢাকার প্রায় ১০টি স্থান থেকে অবৈধ ট্রাক-বাস স্ট্যান্ড তুলে দেওয়া, রাজধানী থেকে বিলবোর্ড অপসারণের কথা উল্লেখ করে মেয়র বলেন, “এসবের সঙ্গে কারা জড়িত তা সবারই জানা। হাজার হাজার কোটি টাকার সিন্ডিকেট ভেঙে দিয়েছি।” এ ক্ষেত্রে স্থানীয় সংসদ সদস্য, ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা জানান তিনি।
মেয়র রাজধানীর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, সন্ত্রাস নিয়ন্ত্রণে নগরীকে ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার আওতায় আনা, নগরীতে বাস সার্ভিস চালু করা, বাসাবাড়ি-ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের সামনে থেকে নিজ উদ্যোগে বর্জ্য অপসারণসহ বেশ কিছু পরিকল্পনার কথা তুলে ধরেন।