মেইন ম্যেনু

সরকার আশ্বস্ত করেছে, আমরা কৃতজ্ঞ

বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে মুখ না খুললেও বিদেশি দুই নাগরিক হত্যার পর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করায় কৃতজ্ঞ কূটনীতিকরা।

খুব অল্প সময়ের ব্যবধানে ইতালি ও জাপানি নাগরিক হত্যার ঘটনার পর উদ্ভূত পরিস্থিতির বিষয়ে ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল।

প্রতিনিধি দলে নেতৃত্ব দিয়েছেন স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বৈঠকের পর সাংবাদিকদের এতথ্য জানিয়েছেন ব্রিটিশ হাইকমিশনার ও কূটনৈতিক কোরের ডিন রবার্ট গিবসন।

আজ মঙ্গলবার বিকাল ৩টার দিকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় কূটনীতিকদের সঙ্গে এ বৈঠক হয়।

বৈঠক শেষে রবার্ট গিবসন সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশ সরকার দেশের সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি তাদের অবহিত করেছেন। বিদেশি দুই নাগরিক হত্যার পর কী কী পদক্ষেপ নিয়েছেন তাও জানিয়েছেন। বিদেশি নাগরিকদের নিরাপত্তা দিতে সরকার আন্তরিক বলেও আমাদের জানানো হয়েছে।

গিবসন বলেন, সরকার নিরাপত্তা প্রশ্নে আমাদেরকে আশ্বস্ত করেছে। খুব শিগগিরই দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে বলেও সরকার আমাদের জানিয়েছে। সরকারের কথায় আপনারা খুশি কি না এমন প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যান রবার্ট গিবসন।

বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদসহ সরকারের বিভিন্ন বাহিনীর উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে ৪৫টি দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার উপস্থিত ছিলেন।



« (পূর্বের সংবাদ)