মেইন ম্যেনু

সরকার একনায়কতন্ত্রের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে

বিএনপির ভারপ্রপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকার জঙ্গিবাদ বিরোধী পদক্ষেপ, উন্নয়ন ও মুক্তিযুদ্ধের কথা বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে। ৭৫ সালে তারা জনগণকে বিভ্রান্ত করে বাকশাল কায়েম করেছিল। এখন আবারো তারা জনগণকে বিভ্রান্ত করে গণতন্ত্রের আবহে একনায়কতন্ত্র কায়েমের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে জাগপার অঙ্গ সংগঠন যুব জাগপার ২৬তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন ‘দাম্ভিকতা ও অহঙ্কার ও চিরদিন ক্ষমতায় থাকার আশা পরিহার করুন। এভাবে কখনো কোনো শাসকের ক্ষমতা চিরস্থায়ী হয়নি। আলাপ আলোচনার মধ্য দিয়ে দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ প্রতিষ্ঠা করে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন। অন্যথায় বাংলাদেশ যে সংকটের মধ্যে নিপতিত হয়েছে তা থেকে কেউ রেহায় পাবে না। আপনারা তো পাবেনই না।’

ফখরুল বলেন, ‘৫ জানুয়ারির ভোটারবিহীন প্রহসনের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধকে অপমান করা হয়েছে। কারণ ওই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনা গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছে। তাই হারানো গণতন্ত্র পুনরোদ্ধারে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে এবং আন্দোলরে মধ্য দিয়ে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে সরকারকে বাধ্য করতে হবে।’

যুব জাগপার সভাপতি ফাইজুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন জাগপার সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, বাংলাদেশ জাতীয় দলের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সৈয়দ এহসানুল হুদা, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া, জাগপার সহ-সভাপতি মঈদুনদ্দিন বাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ জামাল উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক আসাদুর রহমান খান প্রমুখ।