মেইন ম্যেনু

সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারও মারছেন সিল

সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নে এক সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার আগে থেকেই নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে ব্যালট পেপারে সিল মেরে রেখেছেন। বিএনপি প্রার্থী মাহমুদুল হাসান আলাল কেন্দ্রটিতে গিয়ে তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন।

শনিবার সকাল সকাল ১০টায় বেগুনবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়কেন্দ্রে ভোট কারচুপির ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তোলেন ভোটাররা।

ভোট দিতে না পেরে তারা বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন এমন সংবাদে কেন্দ্রে ছুটে আসেন বিএনপি প্রার্থী। তিনি ওই কেন্দ্রের মহিলা ভোট কক্ষে প্রবেশ করেই দায়িত্বরত কর্মকর্তা সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে ভোট কারচুপির সময় হাতেনাতে ধরে ফেলেন। পরে তার সংবাদে প্রিসাইডিং অফিসার আব্দুল হান্নান সেখানে উপস্থিত হন।

এ ব্যাপারে প্রিসাইডিং অফিসার আব্দুল হান্নান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রাথমিকভাবে ভোট বন্ধের কথা জানালেও এখনও পর্যন্ত সেখানে ভোট কারচুপির অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

বিএনপি প্রার্থী মাহমুদুল হাসান আলাল বলেন, যেখানে প্রিসাইডিং অফিসার নিজেই আগে থেকে ব্যালট বইয়ের সব গুলো পাতা সিল মেরে রেখেছেন সেখানে সুষ্ঠু নির্বাচন হওয়ার কোনো অবস্থাই নেই। সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে আমি ওই নারী সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাকে ভোট কারচুপির সময় হাতেনাতে ধরেছি। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ব্যবস্থা কেন নেওয়া হচ্ছে না তা আমার বোধগোম্য নয়।

এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যাপারটি জানেন না বলে জানান।

অপরদিকে সকাল সাড়ে ৯টায় বিরুলিয়া ইউনিয়নের ভবানীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারী পুরুষসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।