মেইন ম্যেনু

সহকারী শিক্ষকরা এখন ১ম শ্রেণীর কর্মকর্তা

দেশের সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের পদমর্যাদা বৃদ্ধির বহুযুগের দাবি অবশেষে বাস্তবায়িত হতে যাচ্ছে। সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা করা হয়েছে। তারা নন-ক্যাডার হিসেবে বিবেচিত হবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে। শিগগিরই এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মোট শিক্ষকের অর্ধেক এ সুবিধা পাবেন। চাকরির বয়স ৮ বছর পূর্তিতে একজন শিক্ষক প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা হিসেবে পদোন্নতি পাবেন। প্রথম শ্রেণীতে পদোন্নতি পাওয়া শিক্ষকরা জাতীয় বেতন স্কেলের ১০ নম্বর ধাপের পরিবর্তে ৯ নম্বর ধাপে বেতন-ভাতা পাবেন।

প্রসঙ্গত, সারাদেশে বর্তমানে ৩৩১টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানে ৭ হাজার ৭৬৪টি সহকারী শিক্ষকের পদ রয়েছে। এর মধ্যে ৩ হাজার ৮৮২টি পদ প্রথম শ্রেণী হিসেবে সংরক্ষিত হবে। যোগ্যতা ও শর্তপূরণ করলেই একজন শিক্ষক দ্বিতীয় শ্রেণী থেকে প্রথম শ্রেণীতে উন্নীত হবেন। উল্লিখিত সুবিধা পেতে ৮ বছর চাকরির বয়স পূর্তি ছাড়াও শিক্ষায় ডিপ্লোমা বা বিএড, বিপিএড (শারীরিক শিক্ষা), বিএড (কৃষি) ডিগ্রি থাকতে হবে।