মেইন ম্যেনু

সহিংসতায় ‘স্থগিত’ আসন্ন ভোট গ্রহনের নির্বাচনী পথসভায় ‘ফের সহিংসতা’

জুলফিকার আলী, কলারোয়া (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: সহিংসতায় ‘স্থগিত’ হওয়া ভোটগ্রহনের ফের পূন:নির্বাচনের লক্ষ্যে নির্বাচনী পথসভায় ‘ফের সহিংসতা’র ঘটনা ঘটেছে।
সাতক্ষীরার কলারোয়ায় ওই নির্বাচনী পথসভায় সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে এক বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের ১০/১৫জন কর্মীকে জখম করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার কেরালকাতা ইউনিয়নো দক্ষিণ বহুড়া গ্রামে।
শনিবার কলারোয়া সরকারি হাসপাতালে চিকিসাধীন উপজেলার নাকিলা গ্রামের মনিরউদ্দিনের ছেলে সাহাজুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে বহুড়া গ্রামের সোহাগ হোসেনের দোকানের সামনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী স.ম মোরশেদ আলীর এক নির্বাচনী পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভা শেষে বাড়ী ফেরার পথে দক্ষিণ বহুড়া গ্রামের আ. মজিদের বাড়ির সামনে পৌছালে পূর্বে থেকে ওৎ পেতে থাকা সস্ত্রাসী ফারুকের নেতৃত্বে শামিম, মনি, মাহাবুল, পলাশ, আতাউর, রশিদ, আরশাদ, মনজু, রউফ, শিমুল, আজগরসহ ১৫/২০ জনের একটি দল লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে তাদের উপর হামলা করে। সন্ত্রাসীদের এলোপাতাড়ী হামলায় বলিয়ানপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা অজিয়ার রহমান (৬৫), নাকিলা গ্রামের মনিরউদ্দিনের ছেলে সাহাজুল (৩০), ফাজিলকাটি গ্রামের সুলতান মোল্লার ছেলে নজরুল ইসলাম (৫৫), দক্ষিণ বহুড়া গ্রামের আকরম আলীর ছেলে আনিছ (৩৫), আয়নুদ্দিন মোড়লের ছেলে নুর ইসলাম (৫০) সহ ১০/১৫ জন জখম হয়েছে।
আহতদের কলারোয়া হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।
ওই রাতেই খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।
এদিকে, কেরালকাতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান স.ম মোরশেদ আলী সাংবাদিকদের জানান, তিনি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার রাতে এলাকাবাসীর সাথে নিয়ে বহুড়া গ্রামের সোহাগ হোসেনের দোকানের সামনে নৌকা প্রতীকের এক পথ সভার আয়োজন করেন। সেখানে বিপুল পরিমান ভোটারগণ উপস্থিত হওয়ায় একটি পক্ষের ইন্ধনে সন্ত্রাসী ফারুকের নেতৃত্বে তার নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়। এতে ১৫ জনের মতো কর্মী জখম হয়েছে।
হামলার ঘটনায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ দায়ের হয়েনি বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৩মার্চ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দিন সহিংসতায় গোলাগুলির ঘটনায় উপজেলার ৮নং কেরালকাতা ইউনিয়নের বলিয়ানপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ বন্ধ করে দেয় নির্বাচন কমিশন। সাময়িক স্থগিত ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ অচিরেই অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।