মেইন ম্যেনু

সাকার ছেলে হুম্মাম কারাগারে

সাত বছর আগের একটি মারামারির মামলায় মানববতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছোট ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

শনিবার বিকেলে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মেহের নিগার সূচনা এ আদেশ দেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবীরা ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২০০৮ সালে গুলশান এলাকায় মারামারির মামলায় চার্জশিটভূক্ত আসামি হুম্মাম কাদের চৌধুরীর জামিন আবেদন করেন। আদালত জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়ে আগামীকাল রোববার জামিন শুনানির দিন ধার্য করেন।

হুম্মাম কাদের চৌধুরী আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফায়েকুজ্জামান ফিরোজ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এরআগে বেলা ১১টা ২০ মিনিটে ধানমণ্ডি ১০ নম্বর সড়কের নিজ বাড়ি থেকে পুলিশ সাকা পুত্র হম্মামকে গ্রেপ্তার করে ধানমণ্ডি থানা পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চত করে ধানমণ্ডি থানার ওসি নূরে আজম মিয়া বলেছিলেন, ‘২০০৮ সালে গুলশান এলাকায় মারামারির ঘটনার চার্জশিটভূক্ত আসামি হুম্মাম কাদের চৌধুরী। এই মামলায় তাকে ধানমণ্ডি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।’

সাকা চৌধুরীর বাড়ির কেয়ারটেকার ইদ্রিস মিয়া বলেছেন, ‘বেলা ১১টার দিকে ধানমণ্ডি থানা পুলিশের একটি দল বাসায় প্রবেশ করে। এরপর ১১টা ২০ মিনিটের দিকে হুম্মাম কাদেরকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়। এসময় ম্যাডাম (সাকার স্ত্রী) উপস্থিত ছিলেন।’

এদিকে হুম্মামের বিরুদ্ধে বাবা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর যুদ্ধাপরাধের রায় ফাঁসের মামলাও রয়েছে। যেখানে তিনি জামিনে রয়েছেন। সেই মামলায় মা ফারহাত কাদের চৌধুরীও আসামি।

সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর দুই ছেলে এক মেয়ের মধ্যে সবার বড় মেয়ে ফারদিন কাদের চৌধুরী। আর বড় ছেলে ফজলুল কাদের চৌধুরী এবং ছোট ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরী।

হুম্মাম কাদের চৌধুরী ব্যক্তিগত জীবনে এখনো অবিবাহিত। তিনি পারিবারিক ব্যবসা জাহাজ ও তেল ব্যসার প্রতিষ্ঠান ‘কিউসি গ্রুপ’র সাথে জড়িত।