মেইন ম্যেনু

সাকা-মুজাহিদের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ

মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।বঙ্গবভনের একটি সূত্র একথা জানিয়েছেন।রাত সাড়ে নয়টার পর রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্ত নিয়ে আইন সচিব বঙ্গভবন থেকে বের হয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের দিকে যান।পরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা সেটি নিয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে যাবে।

এর ফলে তাদের ফাঁসি কার্যকরে আর কোন বাধা থাকেল না। আজ রাতেই এ দণ্ড কার্যকর করা হতে পারে।

মানবতাবিরোধী অপরাধে বিচার রায় রিভিউর আবেদন নাকচ হওয়ার পরে সাকা ও মুজাহিদের প্রাণভিক্ষার আবেদন জানালে কারা কর্তৃপক্ষ তা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। পরবর্তীতে তা আইন মন্ত্রণালয়ে হয়ে বঙ্গভবনে পাঠানো হয়। আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত ও প্রধানমন্ত্রীর সাথে পরামর্শ করে রাষ্ট্রপতি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা ছিল।

এখন রাষ্ট্রপতি প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ করে দেয়ায় এ সংক্রান্ত আদেশ পুনরায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পাঠানো হবে। সেখান থেকে নির্দেশনা যাবে কেন্দ্রীয় কারাগারে।

কারাগার সুত্রে জানা গেছে, সাকা ও মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকরের পূর্ণ প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী সময়মত তাদের ফাঁসি কার্যকর করা হবে।

এর আগে আজ সন্ধ্যা সাতটার দিকে সাকা-মুজাহিদের ক্ষমাভিক্ষার আবেদনের ওপর মতামত দিয়ে সেটি বঙ্গভবনে পাঠানোর কথা জানান আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

গুলশানে নিজ বাসভবনে অপেক্ষামান সাংবাদিকদের বলেন, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের প্রাণভিক্ষার আবেদন রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হয়েছে।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন,“সংবিধানের ৪৯ অনুচ্ছেদ অনুসারে রাষ্ট্রপতিকে তার ক্ষমতা প্রয়োগের আবেদন জানিয়েছেন আসামিরা। এ অনুচ্ছেদ যেহেতু প্রাণভিক্ষার আবেদন সংক্রান্ত,সেহেতু তাদের আবেদন অবশ্যই প্রাণভিক্ষা চেয়ে করা হয়েছে।

ওই সময়ে তিনি আরও জানান, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেয়ার আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে পরামর্শ করবেন।