মেইন ম্যেনু

সাকিবের ক্যাচ ফেলা নিয়ে বিতর্কের অবকাশ কতটুকু?

বুধবার এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে হেরে যাবার পর বাংলাদেশী তারকা খেলোয়াড় সাকিব আল হাসানের একটি ক্যাচ ফেলা নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলছে।

অনেকেই মনে করছেন, টস জিতে আগে ফিল্ডিং নেয়া বাংলাদেশ প্রথমে চালকের আসনে থাকলেও প্রথম ইনিংসের মাঝামাঝি পর্যায়ে ভারতীয় ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মার একটি ক্যাচ ফেলে দেন সাকিব। জীবন ফিরে পেয়ে ওই রোহিত শর্মাই ভারতকে বড় সংগ্রহের দিকে নিয়ে যান।

অনেকেই এই ড্রপ ক্যাচটিকেই ম্যাচটির ভাগ্য নিয়ন্তা বলে মন্তব্য করছেন।

ফেসবুকে সাকিব আল হাসানের পাতায় গিয়ে দেখা যায় শত শত কমেন্টের মাধ্যমে ক্রিকেট ভক্তরা এ নিয়ে বিতর্ক করছেন।

সাকিবের ফেসবুক পাতায় মাহমুদুল হাসান নামের একজন লিখেছেন, ”মেসি রোনালদোর মত ফুটবলাররাও ১টা পেনাল্টি গোল মিস করে বসে। সাকিব না হয় একটি কঠিন ক্যাচ মিস করেছে। আসলে তার সময়টা খারাপ যাচ্ছে। ক্যাচটা মিস করে আরো খারাপ হলো।”

কিন্তু তার এই কমেন্টের প্রতি উত্তর দিয়েছেন ৯২জন। তাদের জবাব সাকিবের পক্ষে বিপক্ষে উভয় দিকেই রয়েছে।

মেহনাজ উদ্দিন নামের একজন লিখেছেন, ”ভাই, দয়া করে আপনার নামের আগে ট্যাগ (বিশ্ব সেরা অলরাউন্ডার) এর প্রতি সুবিচার করে মাঠে পারফর্মেন্স করবেন। আপনি যেখানে, যে দলের বিপক্ষেই খেলেন না কেন, ক্রিকেট বিশ্ব ও ১৬ কোটি বাংলাদেশে আপনার পারফর্মেন্সের দিকে তাকিয়ে রয়েছে।”

রাজু রাজ নামের একজন লিখেছেন,”শুধু একটা ক্যাচ মিস হওয়াতে সব দোষ সাকিবের হয়ে গেলো? এটা তো খেলার একটা অংশ। তাছাড়া, বোলাররা গড়ে বেশি রান দিলো, সেটা কারো চোখেই পড়ছে না।”

গতরাতে ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনেও বেশীরভাগ সাংবাদিকেরাই এই প্রশ্নটি সামনে আনেন।

এসব প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, ”ওই ক্যাচ ফেলাটা অবশ্যই ফলাফলে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে এটা খেলারই একটি অংশ। ম্যাচে ক্যাচ পড়তেই পারে, করার কিছু নেই।”

বাংলাদেশে দলের অধিনায়ক বলছেন, ”একটি খেলায় এরকম একটি জায়গা থাকেই সবসময়, আপনি যখন লুজিং সাইডে থাকবেন, কোন না কোন ভুল বের হবে, এটা খুবই স্বাভাবিক। সর্বশেষ যে সব ম্যাচ বা প্রাকটিস ম্যাচ খেলেছি, সেখানে ১৬০ রানের বেশি করেছি। আমার কাছে মনে হয়না এটা আমাদের আওতার বাইরে ছিল, আসলে হয়তো আমরা আমাদের প্লান কার্যকর করতে পারিনি।”

বাংলাদেশের গণমাধ্যমেও বেশিরভাগ শিরোনামে এসেছে এই ক্যাচ ফেলার ঘটনাটি।

কিন্তু একটি খেলায় ক্যাচ মিস তো হতেই পারে। সেটা নিয়ে বিতর্কের অবকাশ কতটা?

জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক রাকিবুল হাসান বলছেন, ”এটা নিয়ে বিতর্কের কিছু নেই। তবে যেহেতু এটা টি টোয়েন্টি খেলা, হয়তো রোহিত শর্মাকে তখন ক্যাচটি ধরে মাত্র ২১ রানে আউট করা গেলে ভারত আরো বেশি চাপে পড়ত। হয়তো তাহলে টার্গেটটা আরো কম হতো। সে কারণেই হয়তো এই বিষয়টি এত সামনে আসছে। কিন্তু ক্রিকেট খেলাটাই কিন্তু এরকম যে এটা হলে ওটা হতো, ওটা হলে এটা হতো।”

মি. হাসান বলছেন, ”কেউ তো ইচ্ছা করে খেলায় ক্যাচ ফেলে না। সাকিব আল হাসান অনেক অসাধারণ ক্যাচ ধরেছেন। কালকের ঘটনাটি তার একটি দুর্ঘটনা বলেই আমি মনে করি। সুতরাং এটা নিয়ে এত বিতর্কের কোন দরকার আছে বলে আমার মনে হয়না।”

আরেকজন সাবেক অধিনায়ক ও উইকেট কিপার খালেদ মাসুদ পাইলট বলছেন, ”ক্যাচ তো ম্যাচের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বলা হয়, ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস। ওই ক্যাচটাও খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল, সেটা ধরতে পারলে খেলাটা হয়তো অন্যরকম হতো পারতো।”

কিন্তু এক ক্যাচ দিয়ে সবকিছু বিবেচনা করা ঠিক হবে না বলে তিনি মনে করেন। কারণ এরপরেও আরো ব্যাটসম্যান ছিল, হয়তো রান করে ফেলতে পারতো। এটা খেলার একটি অংশ, হয়তো মিস হতে পারে।

মি. পাইলট বলছেন, ”বরং ওভারঅল টিমের মধ্যেই অনেক ঘাটতি ছিল, যে কারণে ম্যাচটি হাতছাড়া হয়ে গেছে। বোলিং ভালো হয়নি, তারা তারা বড় রান করেছে, ব্যাটসম্যানরাও ভালো করতে পারেনি। তাই শুধু ক্যাচের দোষ দিলেই হবে না, বলছেন সাবেক এই অধিনায়ক।”

তবে সেটা যাই হোক, এই ক্যাচ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে মন্তব্য, পাল্টা মন্তব্য চলছেই। সূত্র: বিবিসি বাংলা