মেইন ম্যেনু

সাগরে পাওয়া বোতলে পৃথিবীর সবচেয়ে পুরনো চিঠি

সাগরে ভেসে আসা বোতলে পাওয়া গেছে শতবছরের পুরনো চিঠি। বোতলটি ১০৮ বছর ৪ মাস ১৮ দিন সাগরে ভেসে অবশেষে তীরে পৌঁছে দিয়েছে চিঠি। লাইভসাইন্স ডটকমের খবরে জানানো হয়েছে এই তথ্য।

যুক্তরাজ্যের মেরিন বায়োলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশান ১৯০৬ সালে বোতলটি ছেড়েছিল সাগরে। অবশেষে ২০১৫ সালের ১৭ এপ্রিল বোতলটি গিয়ে পৌঁছে জার্মানির অ্যামরাম দ্বীপের তীরে। ২০১৬ সালে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড এই চিঠিটিকে বোতলে পাওয়া পৃথিবীর সবচেয়ে পুরনো চিঠি বলে আখ্যায়িত করেছে।

মেরিন বায়োলজিক্যাল অ্যাসোসিয়েশানের জীববিজ্ঞানী জর্জ পার্কার সাগরের স্রোতের প্যাটার্ন পর্যবেক্ষণের জন্য একটি গবেষণামূলক প্রোজেক্টের অংশ হিসেবে প্রায় এক হাজার বোতল নিক্ষেপ করেছিলেন সাগরে। খুঁজে পাওয়া বোতলটি সেই বোতলগুলোর অংশ। প্রায় এক শতাব্দী পরে বোতলের ভেতর থেকে উদ্ধার করা তৎকালীন পোস্টকার্ডসহ একটি চিঠি এসে পৌঁছেছে ঠিক ঠিকানায়- যুক্তরাজ্যের এমবিএর প্লামাউথ গবেষণাগারে।
2016_04_24_20_49_19_Kxl4AAeunR62CxErAJzOnjfGC3CYKW_original
জার্মানির অ্যামরাম দ্বীপের সাগরতীর দিয়ে হাঁটার সময় এক জার্মান নারী আবিষ্কার করেন বোতলটি। ভেতরের পোস্টকার্ডে নির্দেশনা দেয়া ছিল, কেউ যদি পোস্টকার্ডটির শুন্যস্থান পূরণ করে সেটা গন্তব্যে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে পারেন তাহলে তাকে এক শিলিং (তৎকালীন মুদ্রার একক যেটা ১২ পেনির সমতুল্য) পুরষ্কার দেয়া হবে।

চিঠি পাওয়ার পরে প্লামাউথ থেকে ঐ জার্মান নারীকে ঠিকই এক শিলিং পুরষ্কার দেয়া হয়েছে। এমবিএর একজন অফিসার বলেছেন, তারা অনলাইন বিকিকিনি সাইট ই-বে থেকে জোগাড় করেছেন তৎকালীন এক শিলিং এবং সেটা পাঠিয়েছেন তাকে।