মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরার এসপিকে তলব, বরখাস্ত হচ্ছে ১১ কেন্দ্রের সব পুলিশ

ভোটের আগের রাতে নির্বাচনী অনিয়ম হলেও তা প্রতিহতে ব্যর্থতার কারণে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের কাছ থেকে ব্যাখ্যা চাইতে তলবের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। একই সঙ্গে সাতক্ষীরা ৪ উপজেলার ১১ কেন্দ্রের পুলিশ সদস্যকে বরখাস্ত ও প্রার্থীর বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশনা দিয়েছে ইসি।

মঙ্গলবার রাতে ভোটে অনিয়মরোধে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের হুঁশিয়ারির পর এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বুধবার ইসি নির্বাচন পরিচালনা শাখার উপ-সচিব সামসুল আলম বলেন, ‘সাতক্ষীরার এসপিকে তলব করা হবে। সেই সঙ্গে ৪ উপজেলার ১১টি ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের সাসপেন্ডের সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

তিনি জানান, সাতক্ষীরার এসপি চৌধুরী মঞ্জুরুল কবিরকে তলবের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তারিখ নির্ধারণের পরই তাকে চিঠি পাঠানো হবে। পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি প্রার্থীর বিরুদ্ধেও মামলা করার বিষয়ে ডিসি ও এসপিকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।

নির্বাচনী অনিয়মের জন্য মঙ্গলবার ৬৫টি ভোটকেন্দ্রের ভোটগ্রহণ বন্ধ করা হয়। এরমধ্যে ব্যালটে সিল মেরে বাক্সে ঢুকানোর অভিযোগে সাতক্ষীরার তালার উপজেলার কুমিরা ইউনিয়নের তিনটি, সদর উপজেলার আলীপুর ইউনিয়নের চারটি, শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউপির তিনটি, কলারোয়া উপজেলার কুশডাঙ্গা ইউপির দু’টি ও কেরালকাতার ইউপির একটি, বেদহাটা উপজেলার পারুলিয়া ইউনিয়নের একটি কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করে ইসি।

সামসুল আলম জানান, সাতক্ষীরার এ ১৪টি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি কেন্দ্রে পুলিশ সদস্যরা গুলি করে অনিয়ম প্রতিহত করেছিল। বাকি ১১টি কেন্দ্রের কোনো প্রতিহতই হয়নি। তাই মামলা ও বরখাস্তের সিদ্ধান্ত হয়েছে।