মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরায় আবারো দূর্গপূজা মন্ডপে তিনটি প্রতিমা ভাংচুর, আটক-০১

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাবুলিয়া হাইস্কুল সংলগ্ন সার্বজনীন দুর্গাপুজা মন্ডপে দুর্বৃত্তরা আবারো তিনটি দুর্গা প্রতিমা ভাংচুর করেছে। রোববার ভোর রাতে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাবুল নামে একজনকে আটক করেছে।

বাবুলিয়া হাইস্কুল সার্বজনীন দুর্গাপুজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অরবিন্দ মন্ডল ও সাধারন সম্পাদক রমেশ চন্দ্র ঘোষ জানান, শুক্রবার রাতে আশাশুনির প্রতিমা শিল্পী সঞ্জয় কুমার মন্ডল দুর্গা পূজার সকল প্রতিমার রঙ টানার কাজ শেষ করে চলে যান। এরপর প্রতিমা কাপড় দিয়ে মুড়িয়ে দেওয়া হয়। রাতে মন্ডপের পাহারার দায়িত্বে ছিলেন পুজা কমিটির সদস্য অমল পাল, গোপাল কর্মকার, সুমন ঘোষ, গোবিন্দ ঘোষ ও মুকুন্দ আমিন।
রোববার ভোর রাত সাড়ে তিনটার দিকে তারা প্রাতঃকর্ম সারার জন্য মন্ডপ ছেড়ে বাড়ি যায়। এরপর দূর্বৃত্তরা এসে তিনটি প্রতিমার বিভিন্ন স্থানে ভাংচুর করে। এ সময় দুর্বত্তরা মন্দিরে ঢুকে দেবী দুর্গার মাথা, শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে উল্টে দেয়। একেবারে ধ্বংস করে দেয় দেবী স্বরসতীর মুর্তিটিও।

বিষয়টি তারা সদরর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে সকালে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর মোদ্দাচ্ছের হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেন।

সাতক্ষীরা জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক স্বপন কুমার শীল জানান, পরিকল্পিতভাবে এ প্রতিমা ভাঙচুর করা হচ্ছে। এর আগে গত ৬ অক্টোবর আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর কর্মকর পাড়া সার্বজনীন দুর্গা মন্ডপেও ৫টি প্রতিমা ভাঙচুর করে দূর্বৃত্তরা।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এমদাদুল হক শেখ জানান, তিনি সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাবুল নামে একজনকে আটক করা হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান জানান, তিনি বিষয়টি জানতে পেরে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন।