মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরায় পুরোহিতকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা : উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টারযোগে ঢাকায় প্রেরণ

আবুল কাসেম, স্পেশাল করেসপনডেন্ট, সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর রাধাগোবিন্দ মন্দিরের পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে (৫৫) কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে একদল দুর্বৃত্তরা। শনিবার ভোর ৪টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটে।
আহত পুরোহিত ভবসিন্ধু বর একই উপজেলার বাজুয়াডাঙ্গা গ্রামের হাজারিনাম বরের ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ওই মন্দিরে পুরোহিতের দায়িত্বে ছিলেন। তবে ডাকাতরাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ধারনা করা হচ্ছে।
আহত পুরোহিতের স্ত্রী সূনিত্রা বর জানান, তারা রাতে মন্দির সংলগ্ন বাড়ীতে ঘুমিয়ে পড়েন। ভোররাত ৪টার দিকে ৬/৭জন দুর্বৃত্ত মুখে কাপড় বেধে মন্দিরের পাহারাদার ইউনুস ও বাবুকে বেঁধে ফেলে দরজা ভেঙ্গে ঘরের ভেতরে প্রবেশ করে। এ সময় তারা ঘুমিয়ে থাকা পুরোহিতকে উপর্যুপরি কুপিয়ে চলে যায়। এতে তার বুকে ও পিটে একটি করে এবং বা-হাতে দুটি কোপ লাগে। তার চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। অপারেশন থিয়েটারে চিকিৎসা শেষে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টারে যোগে ঢাকার বক্ষ্যব্যাধি হাসপাতালে নেয়া হয়েছে বেলা ১১টার দিকে।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম জানান, ডাকাতরা পাশের কালেরডাঙ্গা গ্রামের মাজেদ মোহরার বাড়িতে ডাকাতি করে ১০ভরি সোনা ও নগদ একলাখ ত্রিশ হাজার টাকা লুট করে পুরোহিতের বাড়িতে ডাকাতি করতে এসেছিল। তবে তার বাড়িতে তেমন কিছু না থাকায় কুপিয়ে চলে গেছে।
ভবসিন্ধু বরের ভাই দীনবন্ধু বর জানান, দীর্ঘ ৮ বছর তিনি ওই মন্দিরে পৌরহিত্যের কাজ করে যাচ্ছেন। কারো সাথে তার বিরোধ ছিল বলে তার জানা নেই।
কুপিয়ে হত্যার চেষ্টাসাতক্ষীরা সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌছেচে। কারা ও কি কারণে এঘটনা ঘটিয়েছে,এবিষয়ে তদন্ত চলছে। এঘটনায় জড়িতদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাসেম মো: মহিউদ্দীন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, ঘটনা শুনে প্রাথমিকভাবে মনে হয়েছে, এটা ডাকাতরা ঘটাতে পারে।
তবে খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান বলেন,দেশকে যারা অস্থিতিশীল করতে চায়,পুরোহিতকে কোপানো তাদেরই কাজ।