মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের এক সদস্যের সংবাদ সম্মেলন

সাতক্ষীরায় পৈত্রিক সম্পত্তি আত্মসাৎ করার লক্ষে প্রতিপক্ষরা এক ব্যক্তি ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার কাপসন্ডা গ্রামের মৃত রেজাউল করিম সানার ছেলে মোঃ আব্দুল হালিম সানা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মোঃ আব্দুল হালিম সানা বলেন, আশাশুনি উপজেলার কাপসন্ডা মৌজার পূর্ব পাড়ায় সাবেক ১৮৮ খতিয়ানে ৪ দশমিক ৮০ একর জমি নিয়ে কাপসন্ডা গ্রামের এলাহি বক্স ঢালী গংদের সাথে তাদের দির্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। সাতক্ষীরা ২য় মুনসেফ আদালতের দেওয়ানী ৫১০/২৭ নং মোক্কদমায় গত ১৯২৮ সালের ৩০ মার্চ তারিখে বাকের আলী সানা প্রতিপক্ষ মিয়াজান ঢালী ও জহুর ঢালীর বিরুদ্ধে ডিগ্রী পান।

এরপর বাকের আলী সানা ৪৪৩/৩১ নং মানি মোকদ্দমা করে মিয়াজান ঢালী দিংদের বিরুদ্ধে আরো একটি ডিগ্রী পান। এস,এ রেকড বাকের আলী সানার ওয়ারেশ গণের নামে। সিএস ও এসএ অনুযায়ী বর্তমান মাপ জরিপে ২৭৮, ২৯৫ ও ৩০২ খতিয়ানের উক্ত জমি তার নিজের (হালিম), আইয়ুব আলী সানা ও সৈয়েব আলী সানাসহ মৃত বাকের আলী সানার ওয়ারেশ গণের নামে রেকড হয়।

কিন্ত উক্ত ৪ দশমিক ৮০ একর জমি জোর পূর্বক দখলে নেয়ার জন্য এলাহি বক্স ঢালী ও তার ছেলে আকরাম ঢালী এবং আবুল হোসেন গংরা তাদের নামে একের পর এক মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি করে চলেছে। সব শেষ গত ২২ জুলাই এলাহি বক্স ঢালীর ছেলে আকরাম ঢালী বাদী হয়ে ২০ জুলাইয়ের একটি মিথ্যে ঘটনার কথা উল্লেখ করে কাপসন্ডা গ্রামের মৃত তয়জুদ্দিন মোড়লের ছেলে হারুন মোড়লসহ ৬ জনের নামে অশাশুনি থানায় আরো একটি মামলা দায়ের করে।

মামলা নং-২৫/১৬৮। ওই মামলায় তাকে (হালিম) ৩ নং আসামী করা হয়েছে। কিন্ত মামলার আরজিতে বর্ণিত ঘটনা সপূর্ন মিথ্যে ও বানোয়াট। অবৈধ ভাবে তাদের ওই জমি দখলে নেয়ার জন্য এলাহি বক্স ঢালী গংরা এভাবে একের পর এক এই মিথ্যে মামলা দিয়ে তাদেরকে বাড়ি ছাড়া করার চেষ্টা করছে। তাদের হুমকিতে একজন মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের লোকজন মিথ্যে মামলায় গ্রেফতারের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

তিনি তাদের পৈত্রিক সম্পত্তির জবর দখলের হাত থেকে রক্ষা করাসহ মিথ্যে মামলার দায় থেকে অব্যহতি পাওয়ার জন্য পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন।