মেইন ম্যেনু

সাতক্ষীরায় স্কুলে সহপাঠীর জন্মদিনে মদ খেয়ে অসুস্থ ৮ ছাত্রী!

সাতক্ষীরা: সহপাঠীর জন্মদিন। খুশির যেন অন্ত নেই, ত্বর সইছে তা তাদের। তাই স্কুল ছুটির আগেই ক্লাসের ফাঁকে জন্মদিন উদযাপনের সিদ্ধান্ত। যেই ভাবনা সেই কাজ। তবে বিপত্তি ঘটে একটু পরেই। একে একে আট জন বেহুঁশ হয়ে পড়ে রইল!

এমন ঘটনা ঘটেছে সাতক্ষীরার কারিমা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে। অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীরা সহপাঠীর জন্মদিনে মাস্তি করতে গিয়ে সামান্য মদ পান করেছিল! আর এতেই এই কেলেঙ্কারি।

এদিন জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে বাড়ি থেকে একছাত্রী নিয়ে আসে বিস্কুট। আর স্কুলের বাইরে থেকে আনা হয় কোমল পানীয়। সেইসঙ্গে স্কুলের পাশের ঋষিপাড়া থেকে আগেই কিনে রাখা হয়েছিল স্থানীয় মদ। আর তা কোমল পানীয়র সঙ্গে মিশিয়ে পান করে তারা। খেয়েদেয়ে উন্মাতাল আনন্দ করার একপর্যায়া একে একে অসুস্থ হয়ে পড়তে থাকে ছাত্রীরা। পরে তাদের উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অসুস্থ শিক্ষার্থীরা হলো- সাদিয়া আফরিন, রুমানা জাহান, আখি, রেশমা খাতুন, শিমু সুলতানা, নুরজাহান আক্তার শান্তা ও সুমাইয়া পারভীন মিমসহ ৮ জন।

বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আজিজুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার জন্মদিন ছিল সাতক্ষীরা পৌর কাউন্সিলর শাহীনের মেয়ে শান্তার। জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে মিম নামে অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী বাড়ি থেকে বিস্কুট নিয়ে আসে। ওই বিস্কুট খেয়ে সে সহ তার ৮ সহপাঠী অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাদের সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তারা আশঙ্কা মুক্ত।

তবে, ছাত্রীরা এর সঙ্গে অন্য কিছু খেয়েছে কি না সেটি নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি।

এদিকে, তাদের অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় স্কুল পাড়ায় দিনভর নানা গুঞ্জনের সৃষ্টি হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে জানায় তারা বিস্কুট খায়নি। তারা মাদক জাতীয় কোনো দ্রব্য খেয়েছে।

একাধিক সূত্র জানায়, কাউন্সিল শাহীনের মেয়ে শান্তার জন্মদিন উপলক্ষে সে গতকাল বুধবার রাতে বাড়ির পাশে অবস্থিত ঋষিপাড়া থেকে মদ কিনে। পরদিন শান্তা ও তার বন্ধুরা মিলে ওই মদ খাওয়ার পরই তারা অসুস্থ হয়ে পড়ে।