মেইন ম্যেনু

সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণ করলো মাদ্রাসা শিক্ষক

বগুড়ায় স্কুল বগুড়ার ধুনট উপজেলায় প্লে শ্রেণির সাত বছর বয়সের শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের অভিযোগে আব্দুল আজিজ (২৪) নামে একই মাদ্রাসার এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টায় উপজেলার জোড়খালি নুরানি হাফিজিয়া মাদ্রাসায় শিশু ধর্ষনের ঘটনা ঘটে। আটক মাদ্রাসা শিক্ষক আব্দুল আজিজ সিরাজগঞ্জ জেলার সংলঙ্গা উপজেলার শাহরিয়ারপুর গ্রামের আকবর আলীর ছেলে এবং জোড়খালি নুরানি হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক।

স্থানীয়রা জানান, দাওরায় হাদিস পাশ শিক্ষক আব্দুল আজিজ গত জানুয়ারী মাসে জোড়খালি নুরানি হাফিজিয়া মাদ্রাসায় চাকুরিতে যোগদান করেন। চাকুরির সুবাদে ওই শিক্ষক মাদ্রসার (কর্মস্থল) একটি কক্ষে অবস্থান করেন। একই মাদ্রাসায় প্লে শ্রেণিতে লেখাপড়া করেন ধুনট উপজেলার গোসাইবাড়ি ইউনিয়নের পূর্ব গুয়াডহরী গ্রামের আল-আমিনের মেয়ে।

বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে পাঠদান শেষে প্লে শ্রেণির অন্যান্য শিশু শিক্ষার্থীদের ছুটি দেন শিক্ষক আব্দুল আজিজ। এরপর কৌশলে শিশু শিক্ষার্থীকে শয়ন কক্ষে নিয়ে যান শিক্ষক আব্দুল আজিজ। এক পর্যায়ে সাত বছর বয়সের প্লে শ্রেণির শিশুটিকে ধর্ষন করেন আব্দুল আজিজ। এ সময় শিক্ষকের ধর্ষনের শিকার শিশু শিক্ষার্থীর চিৎকারে মাদ্রসার অন্য কক্ষের আবাসিক শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলে পৌছে শিক্ষক আব্দুল আজিজকে হাতেনাতে আটক করেন। এদিকে, অচেতন অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনেন তার স্বজনরা। সেখানে অবস্থার অবণতি হলে শিশুটিকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক আশরাফ আলী জানান, শিশুটির যৌনাঙ্গে ক্ষত চিহ্ন রয়েছে। নিঙ্গ দিয়ে প্রচুর রক্ত ক্ষরনের কারনে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসকার জন্য পাঠানো হয়েছে।

থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ওয়াদুদ আলী বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে বিকেল ৫টার দিকে শিক্ষক আব্দুল আজিজকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শিক্ষক আব্দুল আজিজ একই মাদ্রসার শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষনের দায় স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় ধুনট থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।বিডি২৪লাইভ