মেইন ম্যেনু

সাদিক খানের জন্য ‘বিশেষ ব্যবস্থা’ ট্রাম্পের

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে মুসলিমদের সে দেশে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছিলেন রিপাবলিকান দলের বিতর্কিত নেতা ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু সম্প্রতি পাকিস্তান বংশোদ্ভূত সাদিক খান প্রথম মুসলিম হিসেবে লন্ডনের মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর তার সেই ‘মুসলিম ঠেকাও’ পরিকল্পনায় খানিকটা রদবদল হবে বলে জানা গেছে।

সোমবার রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন প্রত্যাশি ট্রাম্প বলেছেন,‘ব্যতিক্রম সব ক্ষেত্রেই থাকে।’ টাইম ম্যাগাজিনের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানিয়েছেন, মুসলিম হওয়া সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্র সফর করতে পারবেন নবনির্বাচিত মেয়র সাদিক খান। কেবল তার জন্যই ওই নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হবে। তিনি আরো জানিয়েছেন, মুসলমানদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞার পক্ষে থাকলেও সাদিক খানের জন্য ‘বিকল্প ব্যবস্থা’ রাখা হবে।

প্যারিসে ইসলামপন্থী জঙ্গিদের হামলার পর ট্রাম্প তার জনসভায় প্রেসিডেন্ট হলে যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমানদের প্রবেশ বন্ধ করার ঘোষণা দেন। তার এই বক্তব্য নিয়ে তীব্র সমালোচনার সত্ত্বেও এই সিদ্ধান্ত থেকে এখনও সরে আসেননি তিনি।

এদিকে লন্ডনের মেয়র হবার পর সাদিক খান টাইম ম্যাগাজিনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমেরিকার মেয়রদের সঙ্গে দেখা করতে এবং তাদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনের জন্য আমি আমেরিকায় যেতে চাই। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির প্রেসিডেন্ট হলে আমার ধর্মীয় বিশ্বাসের কারণে আমি সেখানে প্রবেশ করতে পারব না। ফলে আমেরিকান মেয়রদের সঙ্গে আমি আমার ধারণা বিনিময় করতে পারব না।’ তার এই মন্তব্যের পরই ওই ‘বিশেষ ব্যবস্থার’ কথা জানালেন ট্রাম্প।

সাদিক খানের লন্ডনের মেয়র হওয়ায় হওয়ায় খুশি ট্রাম্প। তিনি আরো বলেন, ‘তিনি যদি ভাল কিছু করেন, যদি অসাধারণ কিছু করেন, তবে সেটি হবে দারুণ কিছু।’