মেইন ম্যেনু

সাবধান! এবার ব্র্যাকের কার্ড জালিয়াতি করে কেনাকাটা

বেসরকারি সিটি ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক ও ইউনাইটেড কমার্শিয়াল (ইউসিবিএল) ও মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের পরে এবার ব্র্যাক ব্যাংকের এক গ্রাহকের কার্ড জালিয়াতি করে কেনাকাটা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রীত রেজা নামের ব্র্যাক ব্যাংকের এক গ্রাহক শনিবার এ ঘটনার শিকার হলে তাৎক্ষণিক কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। তিনি তার ফেসবুক পেজে ব্যাংকটির প্রতি আস্থাহীনতার কথা উল্লেখ করেছেন। সোমবার দুপুরে তিনি ব্যাংকের বনানী শাখায় অভিযোগ দাখিল করেছেন বলেও জানান।

ভুক্তভোগী গ্রাহকের ফেসবুক স্ট্র্যটাস থেকে জানা গেছে, শনিবার রাতে প্রীতম রেজার ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে ২৪ হাজার ৯শ টাকার কেনাকাটা করা হয়। রাত ৮টার কিছু পরে তিনি মোবাইলে নটিফিকেশন পান, তিনি ২৪ হাজার ৯শ টাকার কেনাকাটা করেছেন ফেয়ার কানেকশন থেকে। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি ব্র্যাংকের কল সেন্টারে ফোন করে অভিযোগও করেন। কিন্তু ব্যাংক তাকে তাৎক্ষণিক কোনো সহায়তা করেনি। কল সেন্টার থেকে উল্টো জানানো হয়, লিখিত অভিযোগ করার পর তারা ব্যবস্থা নিতে পারবে।

তবে গ্রাহক অভিযোগের বিষয়ে ব্র্যাক ব্যাংকের সার্ভিস কোয়ালিটি বিভাগের প্রধান জারা জাবিন মাহবুবকে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি কার্ড জালিয়াতি করে তিন ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে টাকা চুরির ঘটনা ঘটে। চুরি যাওয়া টাকার পরিমাণ ২০ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। এর মধ্যে, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের মোট ২৪ বারে ১৭ লাখ ৫৩ হাজার; সিটি ব্যাংকের ৪ বারে ১ লাখ ৪০ হাজার; ইউসিবিএলের ৭ বারে ১ লাখ ২৬ হাজার এবং মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ১ বার ট্রানজেকশন করে ৪০ হাজার টাকা উত্তলন করা হয়েছে।

আর এ ঘটনার পোলিশ নাগরিক পিটার স্কেজেফান নামের এক বিদেশি নাগরিকসহ সিটি ব্যাংকের ৩ কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এর সাথে আরো একজন বুলগেরিয়ান, একজন ইউক্রেনিয়ান, লন্ডন প্রবাসী একজন বাংলাদেশিও জড়িত ছিল বলে জানতে পারে পুলিশ। তবে ওই দুই বিদেশি ঘটনাটি প্রকাশের আগেই বাংলাদেশ ছেড়ে চলে যায়।