মেইন ম্যেনু

সাবান পানিতে ধোয়া যায় না ওয়াটার প্রুফ ফোন

বিভিন্ন হ্যান্ড সেট নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের তৈরি পানি নিরোধক ফোনগুলো জনপ্রিয়তায় শীর্ষে রয়েছে। ফোন যদি পানি নিরোধক হয় তবে সেটি দিয়ে সুইমিং পুলে অথবা কোন ওয়াটার পার্কের রাইডগুলোতে চড়াকালীন ছবি ও ভিডিও ধারণ করা যায়। সদ্য সমাপ্ত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৭ এবং সনি এক্সপেরিয়া এক্স উম্মোচিত হয়েছে। এই ফোন দুটি পানি নিরোধক বলে দাবি করা হচ্ছে। এই ফোনগুলো পানি নিরোধক হলেও সাবান পানি এই ফোনগুলোর শত্রু।

কয়েক মাস আগে জাপানে নতুন দুটি ফোন উম্মোচিত হয়েছিল। টর্ক জি০২ এবং ডিগনো রাফরি। তবে এই ফোন দুটি কোনটাই স্ট্যান্ডার্ড মানের পানি নিরোধক নয়। টর্ক জি০২ ফোনটি নোনা জল প্রতিরোধকারী। আর ডিগনো রেফারি ফোনটিকে ৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস উত্তপ্ত সাবান পানিতে ধোয়ার সুবিধা রয়েছে। তবে এই ফোনগুলো জাপানের বাইরে সহজলভ্য নয়।

বেশিরভাগ পানি নিরোধক মোবাইল গুলো সাধারণ পানি নিরোধক। তবে দুর্ঘটনাবশত যদি আপনার ফোনটি টয়লেটে পড়ে যায় তাও হয়তো রক্ষা পাবেন। তবে আপনি মোটেও নিশ্চিত নন যদি ফোনটি কাপড় ধোয়ার সময় অথবা সমুদ্রের পানিতে গোসল করার সময় পানিতে পড়ে যায়। লবণ পানিতে ক্ষয়কারী উপাদান থাকে। যা ফোনের পানি নিরোধক রাবারকে ক্ষতিগ্রস্থ করে এবং ফোনের ভঙ্গুর অংশের ভেতরে প্রবেশ করতে পারে। আর সাবানে রয়েছে ডিটারজেন্ট যা শুকিয়ে সাবান তৈরি করা হয়েছে। প্রথমে সাবান পানিতে মোবাইল ভিজে গেলে আপনি হয়তো কোন সমস্যায় পড়বেন না। তবে ভবিষ্যতে আপনার মোবাইল ক্ষতিগ্রস্থ হবে।

জাপানে নির্মিত টর্ক জি০২ এবং ডিগনো রাফরিতে কার্যকর উপাদান ব্যবহার করা হয়েছে যা সাবান পানি এবং নোনা জল থেকে ফোনকে পরিপূর্ণভাবে রক্ষা করতে পারে। যদিও পানি নিরোধক ফোন শুধুমাত্র পানি নিরোধক হিসেবে ব্যবহারে স্বার্থকতা নয় বরং ভবিষ্যতে এসব ফোনে পানির ভেতরে রেখেও টাচ স্ক্রিন ব্যবহার করা, কল রিসিভ এবং বার্তা আদান প্রদানের সুবিধা সহ সাধারণ ভাবে ব্যবহার করার অপশন হবে পরিপূর্ণ পানি নিরোধক মোবাইলের গুণাবলী। পানির ভেতরেও এসব সুবিধা প্রদান করার জন্য গবেষকরা গবেষণা করে যাচ্ছেন।