মেইন ম্যেনু

সাবেক প্রেমিকের ওপর মেয়েটি এ কেমন প্রতিশোধ নিলো !

মাস কয়েক আগে ছেলেটি জানতে পারে, মেয়েটি আরো বেশ কিছু ছেলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়েছে। প্রতিশোধ নেয়ার জন্য সেও অন্য কিছু মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। এর পরিণাম হয় তাদের ব্রেক আপে।

প্রেম ভেঙে গেলে সাবেক প্রেমিক বা প্রেমিকার ওপর রাগ থাকা স্বাভাবিক, বিশেষত সেই প্রেমিক বা প্রেমিকাকেই যদি সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার জন্য দায়ী বলে মনে হয়। কিন্তু এসব ক্ষেত্রে অধিকাংশ মানুষই বুকের ভিতর রাগ পুষে রেখে মনে মনে গুমরে মরেন। ক’জনই আর নিজের সাবেক প্রেমিকাকে তার ‘কৃতকর্মে’র জন্য শাস্তি দেয়ার উদ্যোগ নেন? কিন্তু এই প্রতিবেদন যে মেয়েটি‌কে নিয়ে সে যে শুধু তার সাবেক প্রেমিককে শাস্তি দিয়েছে তা-ই নয়, তার শাস্তির পদ্ধিতিটিও অবিশ্বাস্য রকমের অভিনব।

সম্প্রতি সেই ভুক্তভোগী প্রেমিক তার ‘ভয়াবহ’ অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট রেডইট-এ। ‘খালিসিসকোরনড’ প্রোফাইল নেম থেকে সে পোস্ট করেছে তার কাহিনি। তার প্রেমিকার প্রকৃত নাম গোপন রেখে তাকে সে উল্লেখ করেছে ড্যানি নামে। সে জানিয়েছে, ড্যানির সঙ্গে তার সম্পর্ক স্থায়ী হয়েছিল বছরখানেকের মতো। কর্মসূত্রে ছেলেটিকে থাকতে হত মেয়েটির থেকে দূরে। মাস কয়েক আগে ছেলেটি জানতে পারে, মেয়েটি আরো বেশ কিছু ছেলের সঙ্গে সম্পর্কে লিপ্ত। প্রতিশোধ নেয়ার জন্য সে-ও অন্য কিছু মেয়ের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। এর পরিণাম হয় তাদের ব্রেক আপে। সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পরে ছেলেটির মনের ওপর দিয়ে কী বয়ে গিয়েছিল সে বিষয়ে সে তেমন কিছু জানায়নি, কিন্তু মেয়েটি যে মোটেই খুশি হয়নি তা তার পরবর্তী আচরণেই স্পষ্ট।

ড্যানির সূত্রেই ছেলেটি জনপ্রিয় সিরিয়াল ‘গেম অফ থ্রোনস’-এর প্রতি আসক্ত হয়। টিভি চ্যানেলে যে নির্দিষ্ট সময়ে সিরিয়ালের এপিসোডগুলি সম্প্রচারিত হত সেটা ছেলেটির কাজের সময়। তাই প্রতি সোমবার ইন্টারনেটে স্ট্রিমিং টেলিকাস্ট দেখত সে। এই কথা জানা ছিল ড্যানিরও। আর সেই বিষয়টিকে কেন্দ্র করেই নিজের প্রতিশোধের পরিকল্পনা করে ড্যানি। ব্রেক আপের পর ড্যানি ছেলেটিকে ব্লক করে দিয়েছিল হোয়াটস অ্যাপে আর ফেসবুকে। কিন্তু মাস খানেক আগে তাকে আবার আনব্লক করে দেয় ড্যানি।

ছেলেটি ভাবে, আবার বোধহয় ড্যানি তার সঙ্গে নতুন করে সম্পর্ক গড়ে তুলতে চায়। কিন্তু ড্যানির পরিকল্পনা ছিল অন্যরকম। প্রতি সোমবার ইন্টারনেটে ‘গেম অফ থ্রোনস’-এর এপিসোড শুরু হওয়ার ঠিক আগে হোয়াটস অ্যাপে মেসেজ করে সে ছেলেটিকে জানিয়ে দিতে শুরু করে এই এপিসোডে কী ঘটতে চলেছে। আসলে টিভিতে এপিসোডটি সম্প্রচার হয় ইন্টারনেট সম্প্রচারের আগেই। সেটি দেখে নিয়ে মেয়েটি জেনে যেত এপিসোডের কাহিনি কোন দিকে মোড় নিতে চলেছে এবার। আর সেটাই হয়ে উঠত প্রাক্তন প্রেমিকের ওপর তার প্রতিশোধের হাতিয়ার। এপিসোডের আগেই তার কাহিনি জেনে যাওয়া মানে সেই এপিসোড দেখার মজাই মাটি।

আর ড্যানির মেসেজের সুবাদে সেটাই ঘটে ছেলেটির ক্ষেত্রে। বিরক্ত হয়ে হোয়াটস অ্যাপে ড্যানিকে ব্লক করে দেয় ছেলেটি। তারপর শুরু হয় ফেসবুকে মেসেজ করা। ফেসবুকেও ড্যানিকে ব্লক করে দেয় ছেলেটি। অতঃপর ছেলেটির ফোনে এসএমএস করা শুরু করে ড্যানি। এমনকী দু’জনেরই পরিচিত— এমন কিছু বন্ধু‌কে দিয়ে ছেলেটিকে ফোন করিয়ে আসন্ন এপিসোডের কাহিনি জানিয়ে দেয়ার কৌশলও নেয় ড্যানি। সবমিলিয়ে ‘গেম অফ থ্রোনস’ দেখা মাথায় উঠেছে ছেলেটির।

ছেলেটি নিজের ব্লগে নিজের পাঠকদের কাছে জানতে চেয়েছে, এই অবস্থায় তার কী করা উচিৎ? নিজের প্রিয় সিরিয়াল দেখার আনন্দ থেকে বঞ্চিত হয়ে সে এখন একরকম দিশেহারা। তবে তার পাঠকরা কেউই তাকে তার প্রশ্নের কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। আসলে এমন অদ্ভুত উপায়ে যে সাবেক প্রেমিকের উপর প্রতিশোধ নেয়া যেতে পারে তা-ই বোধহয় এখনো বিশ্বাস করে উঠতে পারেননি অনেকে।-এবেলা