মেইন ম্যেনু

সাভারে রাস্তা থেকে ডেকে নিয়ে এক যুবককে হত্যা, বাড়ির মালিক আটক

টিপু সুলতান (রবিন) : পূর্ব শক্রুতার জের ধরে সাভারে রাস্তা থেকে ডেকে নিয়ে এরশাদুজ্জামান রুবেল নামের (২৭) এক যুবককে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।
সোমবার দিবাগত রাত ১ টার দিকে সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের ভরারীর আসলাম মিয়ার বাড়িতে এঘটনা ঘটে। এঘটনায় ওই এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
নিহত ওই যুবক কেরানীগঞ্জ থানার লংকারচড় গ্রামের সাদেক মিয়ার ছেলে।
নিহত ওই যুবকের স্ত্রী ফারজানা আক্তার জানায় গতকাল রাতে ভরারী এলাকার একটি দোকানের সামনে থেকে তার ¯^ামীকে মোবাইল ফোনে আসলাম মিয়া নামের এক বাড়িওয়ালা নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায় তাকে। এসময় তাকে ওই বাড়ির একটি কক্ষে হাত পা বেধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। পরে সকালে ওই বাড়ির প্রতিবেশীরা তার ক্ষতবিক্ষত লাশ দেখে সাভার মডেল থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছে তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। এঘটনায় ওই এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এদিকে ওই যুবককে হত্যা করে তার নামে সাভার মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়রি (জিডি) করতে যায় সন্ত্রাসী আসলাম মিয়া। পরে পুলিশের সন্দেহ হলে বাড়ির মালিক সন্ত্রাসী আসলাম মিয়াকে আটক করে পুলিশ।
নিহত ওই যুবক ভরারী এলাকায় আছিমুদ্দিন নামের এক ব্যক্তির বাড়িতে একটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে বসবাস করতো। এদিকে ওই বাড়িতে পরিদর্শন করেছে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
এবিষয়ে সাভার মডেল থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মাহাবুবুর রহমান বলেছেন তদন্ত করে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উল্লেখ্য গত ৯ অক্টম্বর রবিবার রাতে সাভারের আনন্দপুর মহল্লায় আরিফ মিয়া নামের এক যুবককে নির্মম ভাবে পিটিয়ে হত্যা করে দুর্বৃওরা। এঘটনায় পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি।
এলাকাবাসীর অভিযোগ সাভারে আইন শৃক্সখলার চরম অবনতি হয়েছে। হত্যা কান্ডের সুষ্ট বিচার না হওয়ায় এরকম হত্যা কান্ড প্রায়ই ঘটছে।
এঘটনায় সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।