মেইন ম্যেনু

সারাদিন ক্যালোরি পোড়াতে সকালে করুন ৫টি কাজ

নিজেকে সুস্থ রাখতে, মেদভুঁড়ি দূর করতে বা ওজন কমাতে ক্যালোরি পড়ানোর দ্বারস্থ হন সবাই। ক্যালোরি পোড়াতে হলে বাড়াতে হবে মেটাবলিজম, আর এক্ষেত্রে সকাল সকালই আপনি করতে পারেন কয়েকটি কাজ। এ কাজগুলো সকাল বেলাতেই আপনার মন আর শরীর করে তুলবে ফুরফুরে, আর সারাদিন ক্যালোরি পোড়াতে কাজে আসবে।

১) এক্সারসাইজ করুন

ব্যায়ামের উপকারিতার কথা বলাই বাহুল্য। সকাল সকাল ব্যায়াম করে দিন শুরু করলে শরীরটা জেগে ওঠে। এটা মেটাবলিজম বাড়াতেও কাজে আসে। গবেষণায় দেখা যায়, দিনের অন্য কোনো সময়ের চাইতে সকালে ব্যায়াম করলে বেশি ক্যালোরি বার্ন হয়। সকালটা ব্যায়াম দিয়ে শুরু করলে সারাদিনই স্বাস্থ্যকর কাজগুলো করার দিকে আপনার মনোযোগ থাকবে। তবে কম ঘুমিয়ে সকালে উঠে ব্যায়াম করতে হলে উপকারের বদলে ক্ষতিই হবে। তাই ঘুমের কথা মাথায় রাখুন।

২) করুন ইনটেনসিভ ব্যায়াম

সকালে যাদের ব্যায়াম করার সময় বের করাই কষ্ট, তাহের জন্য সুখবর। মাত্র আড়াই মিনিটের ইনটেনসিভ ব্যায়াম করলে এর প্রভাব সারাদিন থেকে যায়। মোটামুটি ২০০ ক্যালোরি পোড়াতে তা সাহায্য করতে পারে। দেখে নিতে পারেন Popsugar এর ছোট্ট অথচ ইনটেনসিভ ১০টি ব্যায়াম।

৩) সকালের নাশতা করুন

নাশতা কোনোভাবেই বাদ দেওয়া যাবে না। ঘুম থেকে ওঠার পর দেরি না করে নাশতা করলে আমাদের শরীর ক্যালোরি পোড়ানোর জন্য প্রস্তুত হয়ে যায়।

৪) দুপুরের আগে খান হালকা খাবার

ওজন ঠিকই রাখার জন্য স্বাস্থ্যকর খাবার দিয়ে ১১টার দিকে নাশতা করাটা ভালো। তবে স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে অবশ্যই। খেতে পারেন এমন কোন স্ন্যাক্স যা মেদ পোড়াতে সক্ষম।

৫) পেশির যত্ন

পেশিকে ক্যালোরি পোড়াতে প্রস্তুত করে তুলুন। এর জন্য ওয়েইট লিফটিং করতে পারেন। পেশী ক্ষয়ের ফলে মেটাবলিজম ধীর হয়ে যেতে পারে, এ কারণে পেশি সুস্থ রাখা জরুরী। যথাযথ ওয়েইট লিফটিং পেশি সুস্থ রাখতে সহায়ক।

৬) ভিটামিন বি এবং ম্যাগনেসিয়াম

কার্ব, প্রোটিন এবং ফ্যাটক শক্তিতে রূপান্তরিত করার চাবিকাঠি হলো ভিটামিন বি। যথেষ্ট ভিটামিন বি না খেলে মেটাবলিজম ধীর হয়ে যায়। আমরা ক্লান্ত হয়ে পড়ি, বিষণ্ণতা ঘিরে ধরে এবং আমরা অসুস্থ হয়ে পড়তে পারি। ম্যাগনেসিয়ামের কথাও ভুলে গেলে চলবে না। এটাও মেটাবলিজমের কাজে জরুরী। এ কারণে খেতে হবে পালং শাক, শিম, মাছ, বাদাম এবং ডিম।

৭) পান করুন কফি এবং ঠাণ্ডা পানি

একটি গবেষণায় দেখা যায়, কফি পান করলে মেটাবলিজম বাড়ে ১৬ শতাংশ। এ কারণে এক কাপ ধূমায়িত কফি দিয়ে দিন শুরু করাটা বেশ ভালো। এর পরে পান করতে পারেন এক গ্লাস ঠাণ্ডা পানি। এই ঠাণ্ডা পানিটাকে গরম করে আমাদের শরীরের তাপমাত্রায় আনতে শরীর কিছুটা শক্তি খরচ করে। এক গ্লাস পানি থেকে যদিও বেশি ক্যালোরি পোড়ে না, কিন্তু এটাকে অভ্যাসে পরিণত করলে উপকার হবে।