মেইন ম্যেনু

সারাদেশের হরতাল চিত্র

যুদ্ধাপরাধ মামলায় জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীকে ট্রাইব্যুনালের দেয়া রায় বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ। আদালতের এই রায়ের প্রতিবাদে আজ সেমাবার সারাদেশে সকাল সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে জামায়াত।

জামায়াতের ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর মকবুল আহমাদ গতকাল মঙ্গলবার এ হরতালের ঘোষণা দেন।

হরতালের সমর্থনে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে দলটির নেতাকর্মীরা।

মিরপুর পূর্ব থানা: হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। মিছিলটি মনিপুর কাসেমের দোকান থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বারেক মোল্লার মোড়ে এসে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগরীর কর্মপরিষদ সদস্য ও মীরপুর পূর্ব থানা আমীর মাহফুজুর রহমান। উপস্থিত ছিলেন মহানগরী মজলিশে শুরা সদস্য ও থানা সেক্রেটারী জনাব আব্দুল্লাহ জুবায়ের, থানা শুরা ও কর্মপরিষদ সদস্য মুয়াজ, মীতুল, মাহবুব, সেলিম, ইছাহাক, ও ছাত্রনেতা এনামুল হক ও বোরহান প্রমুখ ।

সবুজবাগ থানা: হরতালের সমর্থনে সবুজবাগ থানার উদ্যোগে নগরীতে মিছিল-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি সবুজবাগ থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা সেক্রেটারি আবু মাহি। উপস্থিত ছিলেন ছাত্রনেতা রানা ও নাসির উদ্দীন প্রমূখ।

বিমানবন্দর থানা: হরতালের সমর্থনে বিমানবন্দর থানার উদ্দোগে সকাল ৬,৩০ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি বিমানবন্দর সংলগ্ন আসকোনা বাজার এলাকার বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে এক সংক্ষিপ্ত পথ সভার মাধ্যমে শেষ হয়। বক্তব্য রাখেন থানা আমীর আবু ফারহান মোঃ মুহিব। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী এ্যাডভোকেট ইব্রাহিম খলিল, জামায়াত নেতা আবুল হাসেম, আব্দুর রহিম, মোঃ শামিম হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার রুহুল হক ও ইসলামী ছাত্র শিবিরের থানা সেক্রেটারী মীর সাব্বির হোসেন প্রমূখ।

তুরাগ থানা: হরতালের সমর্থনে তুরাগ থানার উদ্দোগে সকাল ৬ ৪৫ টায় একটি বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি যাত্রাবাড়ী সংলগ্ন এলাকার বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে এক সংক্ষিপ্ত পথ সভার মাধ্যমে শেষ হয়। বক্তব্য রাখেন থানা সেক্রেটারি। উপস্থিত ছিলেন থানার জামায়াত নেতা মনির হোসেন, মোঃ আলী হোসেন ও শিবিরের থানা সভাপতি মো: সুমন ইসলাম ।

খিলখেত থানা: খিলখেত থানা জামায়াতে ইসলামীর উদ্দোগে সকাল ৬.৩০ টায় খিলখেত বাজারে হরতালের সমথর্নে মিছিল করে। এতে নেতৃত্ব দেন থানা আমীর মাও হুসাইন আহমদ। উপস্থিত ছিলেন সলিমুল্লাহ, মাও হাবিবুর রহমান আতিকুর রহমান শিবির সভাপতি নাঈম আহমেদসহ জামায়াত-শিবির নেতা কর্মী।

কদমতলী পশ্চিম থানা: কদমতলী পশ্চিম থানার উদ্যোগে থানা সেক্রেটারী মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে সকাল ৭টায় কদমতলী বই বাজার এলাকায় মিছিল করেছে জামায়াত। মিছিলে আরো উপস্থিত ছিলেন ভাটারা থানা আমির এ.কে. মজুমদার, বাড্ডা থানার সেক্রেটারি কুতুব উদ্দিন, ছাত্রনেতা মোহাম্মদ জামিল প্রমূখ।

উত্তরা পূর্ব থানা: জামায়াতে ইসলামী উত্তরা পূর্বথানার উদ্যোগে সকাল ৭ঘটিকার সময় জামায়াত নেতা মীরকাশেম আলীর মুক্তি ও অবৈধ ট্রাইব্যুনাল ভেঙ্গে দেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মিছিলটি থানার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পিকেটিং এর মাধ্যমে শেষ হয়। মিছিলে নেতৃত্ব দেন থানা সেক্রেটারি প্রফেসর মাহবুব আলম মুকুল, জামায়াতের অফিস সেক্রেটারি আবু ইফতি ফেরদৌসী, জামায়াত নেতা আলমগীর কবির, শিবির নেতা মাজহারসহ জামায়াত-শিবিরের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

তেজগাঁও এলাকা: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের অন্যতম সদস্য জননেতা মীর কাশেম আলীকে হত্যার সরকারী ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সকাল ৭টায় রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে জামায়াতে ইসলামী তেজগাঁও থানা।

হাজারীবাগ: হরতালের সমর্থনে হাজারীবাগ থানার উদ্যোগে নগরীতে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে রায়ের বাজার কমিউনিটি সেন্টারের সামনে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা আমীর জারিফ। উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় জামায়াত-শিবির নেতৃবৃন্দ।

চকবাজার: চকবাজার থানার উদ্যোগে হরতালের সমর্থনে সকাল ৭টায় এক বিক্ষোভ মিছিল রহমতগঞ্জ থেকে শুরু হয়ে ওয়ার্কস রোড দিয়ে চকবাজার মোড় হয়ে শেষ হয়। উপস্থিত ছিলেন চকবাজার থানা আমীর আল আমিন, মো: রফিকুল ইসলাম, মো: কলিমুল্লাহ, শিবির ঢাকা আলীয়ার সভাপতি আবুল হাসেম ও চকবাজার সভাপতি তানভীর আহমদ প্রমুখ ।

ডেমরা: ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় সকাল ৬.৪৫ টায় মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী মো: আলী, মিজানুর রহমান, হেলাল উদ্দিন, আবু তাহের ও পলাশ প্রমুখ।

যাত্রাবাড়ী পূর্ব: ডেমরা রোড সকাল ৭টায় মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন থানা আমীর নিজামুল হক নাঈম, থানা সেক্রটারী মো: শাহজাহান, উমর ফারুক, ইমরান আহমদ ও মহানগরী শিবিরের দক্ষিণ সেক্রেটারী রিয়াজ উদ্দিন প্রমুখ।

যাত্রবাড়ী পশ্চিম: সকাল ৭টায় কাজলা রোডে একটি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী এম. উদ্দিন, মামুন, খালেদ ও ছাত্রনেতা রাসেল প্রমুখ।

কদমতলী পূর্ব: সকাল ৭টায় শানির আখড়া দনিয়া রোড়ে এক মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। থানা আমীর আমিরুল ইসলাম, সেক্রেটারী মনির হোসেন, তাইমুস, আতিকুর রহমান, ছাত্রনেতা আবু বকর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কদমতলী পশ্চিম-শ্যামপুর: জুরাইন রেল গেট এলাকায় সকাল ৬.৪৫ টায় মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। উপস্থিত ছিলেন মহিউদ্দিন, কবির আহমদ, কামরুল ইসলাম, আবুল কাসেম ভূইয়া প্রমুখ।

গেন্ডারিয়া: সাধনা এলাকায় সকাল ৬.৩০ টায় হরতালের সমর্থনে এক বিক্ষোভ মিছিল গেন্ডারিয়া থানার উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বেলায়েত হোসেন, আলাউদ্দিন, হাবিবুর রহমান, আমিনুর রহমান ও ছাত্রনেতা তারেক প্রমুখ।

খিলগাও থানা: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মীর কাসেম আলী দন্ডাদেশের প্রতিবাদে খিলগাও থানা সকাল-সন্ধ্যা হরতালের সমর্থনে এক বিক্ষোভ মিছিল করে। ঢাকা মহানগরীর মজলিশে শুরা সদস্য ও খিলগাওথানা আমীর আব্দুল্লাহ আলামীনের নেতৃত্বে মিছিলটি ভুইয়াপাড়া থেকে শুরু হয়ে শেষ মোড়ে এসে এক সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। উপস্থিত ছিলেন থানা সেক্রেটারী এস এম জুয়েল, থানা শুরা ও কর্মপরিষদ সদস্য জুলফিকার আলী, আ ন ম শহিদুল্লাহ, মো: সরয়ার, ও শিবির থানা সভাপতি মজিবর রহমান ও মোতাহার হোসেন প্রমুখ ।

ভাটারা ও বাড্ডা থানা: মিছিলে উপস্থিত ছিলেন ভাটারা থানার আমির এ কে মজুমদার, বাড্ডা থানার সেক্রেটারি কুতুব উদ্দীন, ছাত্রদের মহানগরী উত্তরের সেক্রেটারি জামিল ভাই সর্বপর্যায়ের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানা: হরতালের সমর্থনে রাজধানীর প্রধানমন্ত্রীর কার্যলয় এলাকায় মিছিল করে জামায়াতে ইসলামী। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন থানা আমির রফিক, সেক্রেটারি সেলিম, ছাত্রনেতা আনসারি ও হিলালি প্রমূখ।

মিরপুর পশ্চিম: হরতালের সমর্থনে রাজধানীর কল্যাণপুর এলাকায় জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল করে।উপস্থিত ছিলেন জাহাঙ্গীর কবির, মাহফুজুর রহমান, তাজুল ইসলাম ও ছাত্রনেতা তরিকুল প্রমুখ।

কাফরুল-ভাষানটেক থানা: হরতালের সমর্থনে রাজধানীর ইব্রাহিমপুর এলাকায় জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন আনোয়ার হোসেন, আলাউদ্দিন, এ. মতিন, তপন, সেলিম প্রমূখ।

কোতয়ালী থানা: হরতালের সমর্থনে সকাল সোয়া ৬টায় রাজধানীর বাবুবাজার এলাকায় মিছিল করে জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীরা। মিছিলটি বাবুবাজার থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে নয়াবাজারে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন আবু আব্দুল্লাহ, এম আর আজাদ, রিফক, ডা. আলম, ইুদ্রস শাহজাহান, মিজান প্রমূখ।

পল্লবী ও রূপনগর থানা: হরতালের সমর্থনে রাজধানীর মুসলিম বাজার এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে জামায়াতে ইসলামী পল্লাবী থানা। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন আশরাফ আলী, নাসির উদ্দিন,সুলতান ও পবন প্রমূখ।

মতিঝিল থানা: হরতালের সমর্থনে রাজধানীর কমলাপুর এলাকায় সকাল সাড়ে ৮টায় মিছিল করেছে জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীরা।

রমনা থানা: হরতালের সমর্থনে রমনা থানার উদ্যোগে নগরীতে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি মৌচাক থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বালুর মাঠের সামনে এসে শেষ হয়। সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মহানগরী শুরা সদস্য ড. আহসান হাবীব। উপস্থিত ছিলেন জামায়াত নেতা আতাউর রহমান সরকার, ছাত্রনেতা সাইয়েদ জোবায়ের, জামায়াত নেতা আখতার হোসাইন ও ছাত্রনেতা আনিসুর রহমান প্রমুখ।

বগুড়া: বগুড়ার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াত-শিবির। হরতাল সমর্থনে মিছিল করায় আগের রাতে তিন জামায়াত নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বুধবার সকাল ৭টায় জামায়াত-শিবির কর্মীরা দ্বিতীয় বাইপাস সড়কের সাবগ্রাম এলাকায় মিছিল বের করে। এরপর মিছিল হয় শহরের মাটিডালী এলাকায়। এছাড়া আর কোথাও হরতালের সমর্থনে কোনো পিকেটিং করতে দেখা যায়নি।

এদিকে, হরতালের আগের রাতে আদমদিঘি এবং কাহালু থেকে তিন জামায়াত নেতাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে কাহালু থানা পুলিশ উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমির ও কাহালু সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল মোমেনকে গ্রেপ্তার করে। এছাড়া আদমদিঘি থানার পুলিশ উপজেলা জামায়াতের কোষাধ্যক্ষ আব্দুর রহমান ও সদর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড জামায়াতের সেক্রেটারি বাবু কাজীকে গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।