মেইন ম্যেনু

সালথায় অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন: হুমকির সম্মুখিন পাঁকা সড়ক

মহসিন উদ্দিন, সালথা (ফরিদপুর) প্রতিনিধিঃ ফরিদপুরের সালথায় ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলন করার ফলে উপজেলার বিভিন্ন নদ-নদীর দু’পাড়ের পাঁকা সড়ক এখন হুমকির মুখে পড়েছে। যে কোন সময় এসব সড়কের বড় ধরণের ক্ষতি হতে পারে বলে মনে করেন অনেকে। স্থানীয়দের অভিযোগ নদ-নদী থেকে এভাবে যদি বালু উত্তোলন করা হয় তাহলে এক সময় নদ-নদীর পাড় ও পাঁকা সড়ক ভেঙ্গে নদীর মধ্যে পড়বে। এখনই তো অনেক স্থানে সড়কে ফাটল ধরেছে।

এছাড়া উত্তোলনকৃত নিম্নমানের এসব বালু ব্যবহার করা হচ্ছে বিভিন্ন সরকারী কাজে। কাজে বেশি লাভবান হওয়ার জন্য এসব অবৈধ পথ বেঁছে নিয়েছেন বিভিন্ন সরকারী কাজের ঠিকাদাররা। প্রশাসেনর সামনে বালু ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন নদ-নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসলেও তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।
জানা গেছে, বর্তমানে উপজেলার মধ্যে দিয়ে বয়ে যাওয়া কুমার নদের মধ্যে ৪টি ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এর মধ্যে গট্টি ইউনিয়নের দিয়াপাড়া গ্রামের সামনে কুমার নদের মধ্যে ৩টি ও বড়দিয়া গ্রামের সামনে ১টি ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করছেন বালু ব্যবসায়ীরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এসব বালু ব্যবসায়ীরা নদী থেকে বালু উত্তোলন করে নদের পাড়ে নির্মানাধীণ বড়দিয়া-তালমা সড়কের কাজে ব্যবহার করছেন। সরকারী কাজে ভালো মানের বালু ব্যবহার না করে বালুর নামে কাঁদা-মাটি ব্যবহার করায় স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের বিষয় একাধিক বালু ব্যবসায়ীর সাথে কথা হলে তারা জানান, সরকারী রাস্তার কাজের জন্য নদী থেকে বালু উত্তোলন দেয়া হচ্ছে। তবে নদী থেকে বালু উত্তোলনের কোন অনুমতি নেওয়া হয়নি। স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের সহযোগিতায় বালু ব্যবসায়ীরা এভাবে বালু উত্তোলন করছে।

এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন নদ-নদী ও সরকারী খাল-বাউরে একইভাবে বালু উত্তোলন করে বিভিন্ন সরকারী কাজের ঠিকাদারদের কাছে বিক্রি করছেন। আর ঠিকাদারা এসব নিম্নমানের বালু দিয়ে সড়ক নির্মাণসহ বিভিন্ন সরকারী কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। উপজেলা প্রকৌশলী অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সামনে নিম্নমানের বালু দিয়ে কাজ করা হলেও কোন বাঁধা দিচ্ছেন না তারা।

এব্যাপারে সালথা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল কাদের বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে তদন্ত করে এ বিষয় ব্যবস্থা নেব।