মেইন ম্যেনু

সালথায় পিতার হাতে পুত্র খুন : পাষন্ড পিতা আটক

ফরিদপুরের সালথায় পিতার হাতে পুত্র হারুন শেখ (৩৫) খুন হয়েছে। এঘটনায় পাষন্ড পিতা আব্দুল হককে আটক করেছে পুলিশ। গত রবিবার রাতে উপজেলার ভাওয়াল ইউনিয়নের ভাওয়াল গ্রামে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী আহত ফেলু শেখ জানান, কিছুদিন পূর্বে নিহত হারুনের স্ত্রী ফুরফুরি বেগমকে বেদম মারপিট করে পাষন্ড পিতা আব্দুল হক, চাচা কাসেম ও তার লোকজন। এ ঘটনার পর ফুরফুরির পিতা মোড়হাট গ্রামের আতিক মুন্সী একটি মামলা করে। মামলার পর থেকেই পারিবারিক কোন্দল বাড়তে থাকে। এরই জের ধরে ঘটনার দিন রাত আনুমানিক সাড়ে ৮ টার দিকে পিতা আব্দুল হক, চাচা কাসেম, ছোট ভাই ইরন শেখ ও চাচাতো ভাই সাইফুল এরা ৫/৬ জন রড, লাঠি ও টর্চ লাইট নিয়ে হারুনকে বেদড়কভাবে পেটায় । এতে হারুন গুরুতর আহত হয়। আহতবস্থায় হারুনকে প্রথমে নগরকান্দা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে ভর্তি না করে ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে পাঠান। ফরিদপুর মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসকরা তার অবনতি দেখেই তাৎক্ষনিকভাবে ঢাকা পাঠিয়ে দেয়। ঢাকা নেওয়ার পথে পথিমধ্যে হারুন মারা যায়।
জানা যায়, হারুনের উপর হামলা করার সময় ঠেকাতে এসে ফেলু শেখ (৩৮) ও জাফর শেখ (৩৩) আহত হয়। তাদেরকে নগরকান্দা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ পাষন্ড পিতা আব্দুল হকসহ ২ জন আটক করেছে।
সালথা থানার এস আই ওহিদুজ্জামান খুনের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খুন হওয়ার খবর পেয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের পিতা আব্দুল হককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।