মেইন ম্যেনু

সালমানের কারণে ক্ষমা চাইতে হলো তার বাবাকে

সালমান খান তার নতুন ছবি ‘সুলতান’ নিয়ে এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, এ ছবির শুটিং শেষে নিজেকে মনে হয় ‘পাশবিক নির্যাতনের শিকার হওয়া নারী’। তার এমন মন্তব্যের পর ঝড় উঠে সোশ্যাল মিডিয়াতে। এ নিয়ে তীব্র বিতর্কের সৃষ্টিও হয়।

এ ঘটনায় সালমান খানকেই ৭ দিনের সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে ক্ষমা চাইতে! এসময়ের মধ্যে তাকে ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে ভারতের ন্যাশনাল কমিশন ফর ওমেন। পাশাপাশি তার অমন মন্তব্যে চটেছে বিভিন্ন নারবাদী সংঘঠন, মানবাধিকার সংঠন থেকে সাধারণ জনতাও!

অনেকেই বলছেন, সালমান খান নিজেকে ‘পাশবিক নির্যাতনের শিকার হওয়া নারী’র সঙ্গে তুলনা করে তিনি পাশবিক নির্যাতনের শিকার অসহায় নারীদের হেয় করেছেন।

আবার কেউ ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন এই বলে যে, ‘পাশবিক নির্যাতনের শিকার হওয়া নারী’র সঙ্গে নিজেকে তুলনা করে সালমান যে বক্তব্য দিয়েছেন তার জন্য তাকে জেলে পাঠানো উচিত। অনেকে সালমানের ক্ষমতার কাছে ফিল্মের আলোচকদের অসহায়ও বলছেন। কারণ তা না হলে অন্য কেউ এমন মন্তব্য করলে নাকি এতক্ষণ ভারতে তুলকালাম ঘটে যেত!

এদিকে ওই বক্তব্য নিয়ে চারদিকে যখন দারুণ সমালোচিত সালমান খান, তখন এই বিষয়ে নিয়ে কথা বললেন সালমানের বাবা সেলিম খান। তিনি সালমানের বন্ধুবান্ধব, ফ্যান ও সমস্ত ভারতীয়দের কাছে নিস্বার্থভাবে পুত্র সালমানের এমন বেফাঁস মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চান।