মেইন ম্যেনু

সালমানের জন্যই আরবাজকে ডিভোর্স দিচ্ছেন মালাইকা!

সুপারস্টার অভিনেতা সালমান খান। খান পরিবারে তার কথাই নাকি শেষ কথা। তিনি যা বলেন তার বাইরে কেউ টুঁ শব্দটিও করার দুঃসাহস দেখাতে পারেন না। পরিবারে সালমানের এইরকম স্বৈরশাসনের জন্যই নাকি তার ভাইকে ডিভোর্স দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্ত্রী এবং ‘মুন্নী বদনাম’ খ্যাত তারকা মডেল ও অভিনেত্রী মালাইকা অরোরা।

বেশ ক’দিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল যে, সালমান ভ্রাতা আরবাজ খানকে ডিভোর্স দিচ্ছেন মালাইকা। প্রথম দিকে ডিভোর্সের খবরটি গুঞ্জন মনে হলেও ধীরে ধীরে তা সত্য খবরেই পরিনত হয়। এমনকি অনেকদিন ধরেই নাকি আরবাজের সঙ্গে সেপারেশনে আছেন মালাইকা।যদিও সেপারেশনের প্রথম দিকে শোনা গিয়েছিল যে, বিদেশি এক শিল্পপতির সঙ্গে প্রেম করছেন বলেই আরবাজের থেকে দূরে সরে থাকতে চাইছেন মালাইকা। কিন্তু এমনসব প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছেন তিনি।

মালাইকার ঘনিষ্ঠসূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় শীর্ষস্থানীয় পত্রিকাগুলো খবর ছাপিয়েছে যে, অন্যের জন্য নয়, বরং সালমানের একতন্ত্র থেকে মুক্তি পেতেই আরবাজকে ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মালাইকা। স্বামী আরবাজ খানও নাকি সালমান দ্বারা দারুনভাবে প্রভাবিত। সালমানের দ্বারা গোটা পরিবার এমনভাবেই শৃঙ্ক্ষলাবদ্ধ যে সালমানকে ছাড়া খান পরিবারের কেউ নাকি মুক্ত চিন্তাই করতে পারেন না। সালমানের সাফল্যের নিচে তাই সব সময় চাপা পড়ে পরিবারের অন্যান্যদের সাফল্য। আর তা থেকে বাঁচতেই খান পরিবারকে ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মালাইকা।

আর অন্যদিকে যখন আরবাজ মালাইকার ডিভোর্স নিয়ে তোলপাড়, ঠিক সেসময়ে গতকাল রাতে একটি ডিনার পার্টি একসঙ্গে দেখা গেল মালাইকা ও আরবাজকে। বান্দ্রার একটি রেস্ট্রুবারে তাদের একসঙ্গে দেখা গেছে। তবে এসময় শুধু আরবাজ আর মালাইকাই ছিলেন না, বরং তাদের দু’জনের তরফ থেকে সঙ্গে ছিলেন তাদের ছেলে আরহান, মালাইকার মা জয়েস পলিকার্প, বোন অমৃতা অরোরা। প্রায় এক ঘণ্টা তাদের মধ্যকার বৈঠক চলে। ডিনারের পর আরবাজ ও মালাইকা পৃথকভাবে রেস্ট্রুবার ত্যাগ করেন। এসময় পাপারাজ্জিরা দুজনকে িএকসঙ্গে পোজ দিতে বললে তারা এড়িয়ে যান।

প্রসঙ্গত, বেশ ক’দিন ধরেই বলিপাড়ায় গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল যে সালমান খানের ভাই আরবাজ খান ও তার স্ত্রী মালাইকা অরোরা খানের মধ্যে ছাড়াছাড়ি হচ্ছে। এমন খবর যখন চারদিকে ছড়িয়ে যেতে লাগলো, তখন এ নিয়ে মুখ খুলেন আরবাজ খান নিজেই। মিডিয়াকে এক হাত দেখিয়ে ছাড়তেও ভুল করেন না তিনি! সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমেও মালাইকার সঙ্গে বিচ্ছেদের খবরকে গুঞ্জন বলে প্রমান করার নানাবিধ চেষ্টা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বোধয় আর শেষ রক্ষা হচ্ছে না। কারণ ডিভোর্সের সিদ্ধান্তে নাকি একেবারে অনড় স্ত্রী মালাইকা অরোরা খান!