মেইন ম্যেনু

সালামানের দেহরক্ষীর মাসিক বেতন ১৯ লাখ টাকা

গত ২০ বছর ধরে সালমান খানের দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করছেন গুরমিত সিং জলি বা শেরা। জাস্টিন বিবারের কারণে কদিন ধরেই তিনি খবরের শিরোনামে উঠে এসেছেন। কারণ গতকাল মুম্বাইতে অনুষ্ঠিত হয় আন্তর্জাতিক পপ সেনসেশন জাস্টিন বিবারের ‘পার্পাস ট্যুর’ অনুষ্ঠান। যেখানে জাস্টিনের সিকিউরিটির দায়িত্বে ছিলেন এই শেরা।

জানেন কত মাইনে পান সালমানের দেহরক্ষী শেরা? তা শুনলে অবশ্য আপনার চোখ কপালে উঠে যাবে। একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইটের মতে তাকে মাসে ১৫ লাখ রুপি অর্থাৎ ১৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা পারিশ্রমিক দেওয়া হয় সালমানকে সুরক্ষিত রাখার জন্য!

মাঝে মধ্যেই সালমানকে ঘিরে ধরে ভক্তরা। আর সেখান থেকে ঠিকমত সাল্লু ভাইকে বের করার দায়িত্ব শেরার। একবার তো কয়েকশো ভক্ত সালমানের গাড়ি ঘিরে ধরে। পরে শেরাকে গাড়ি থেকে নেমে‚ ভক্তদের ভিড় ঠেলে রাস্তা তৈরি করতে হয় যাতে গাড়ি এগোতে পারে। আর এটা করতে গিয়ে গাড়ির সামনে প্রায় আট কিলোমিটার দৌড়াতে হয়েছিল তাকে।

জানা গেছে, শেরা নব্বইয়ের দশক থেকেই বলিউড তারকাদের দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করছেন। সালমানের সঙ্গে তার প্রথম আলাপ হয় ১৯৯৫ সালে। ওই বছর হলিউড তারকা কিয়ানু রিভস এসেছিলেন ভারতে। তার সম্মানে একটা পার্টি হয়েছিল। সেখানেই সালমানের সঙ্গে কয়েক মিনিট কথা বলার সুযোগ পান শেরা। তিনি তখন সালমানের জন্য কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। তখন অবশ্য সালমানের দেহরক্ষী ছিলেন অন্য একজন, তাই সুযোগ মেলেনি।

একবার চন্ডিগড়ে শো করতে গিয়ে ভক্তদের মাঝে পড়েন সালমান। কিন্তু দেহরক্ষীরা তাকে ওই পরিস্থিতির মধ্য থেকে বের করতে পারেনি। ফলে চাকরি চলে যায় দেহরক্ষীদের। পরে সালমানের ভাই সোহেল খান শেরাকে নিযুক্ত করার কথা ভাবেন। তখন থেকেই সালমানের ছায়াসঙ্গী তিনি।

শেরার কাছে সালমানই সব। তার কথায়, ‘সালমান আমার জন্য সব, আমি ওর জন্য জীবন দিয়ে দিতে পারি। উনি আমার ভগবান।’ সালমানও শেরাকে খুব ভালোবাসেন। তাকেই ‘বডিগার্ড’ উৎসর্গ করেছিলেন সালমান।






মন্তব্য চালু নেই