মেইন ম্যেনু

সাহিত্যে নোবেল পেলেন বব ডিলান

‘আমেরিকার সংগীত ঐতিহ্যে কাব্যিক অভিব্যক্তি সংযোজন’ এর কারণে ২০১৬ সালের জন্য সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পেলেন আমেরিকার গায়ক, গীতিকার, লেখক, সুরকার, কবি এবং ডিস্ক জকি বব ডিলান।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে সময় বিকেলে পাঁচটার দিকে রয়েল সুইডিশ একাডেমি নোবেল সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার ঘোষণা করেন।

নোবেল পুরস্কারের ৮০ লাখ সুইডিশ ক্রোনার পাবেন ডিলান। আগামী ১০ ডিসেম্বর তার হাতে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে।

রবার্ট অ্যালেন জিমারম্যান বা বব ডিলান ১৯৪১ সালের ২৪ মে জন্মগ্রহণ করেন। তার সঙ্গীত জীবন শুরু ৬০এর দশকে। ১৯৫৬ সালে মিনেসোটা’য় একটি কফি হাউজে গান করার মধ্য দিয়ে। ৭৫ বছর বয়স্ক এই সঙ্গীত তারকার ‘আমেরিকান পাই’ গানের কথা এখনও অনেকের কাছে এক রহস্য।

বিগত পাঁচ দশক ধরে জনপ্রিয় ধারার সঙ্গীতের অন্যতম প্রধান ব্যক্তি ডিলান।তার শ্রেষ্ঠ কাজের মধ্যে অনেকগুলো ১৯৬০ দশকে রচিত হয়েছে। এসময় তিনি আমেরিকান অস্থিরতার প্রতীক বিবেচিত হতেন।

তার কিছু গান, যেমন ‘Blowin’ in the Wind’ and ‘The Times They Are a-Changin’, যুদ্ধবিরোধী জাতীয় সঙ্গীত হিসেবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে এবং ১৯৫৫-১৯৬৮ সালের আমেরিকান নাগরিক অধিকার আন্দোলনের প্রতীক হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। তার সর্বশেষ অ্যালবা‍ম, Christmas In The Heart (২০০৯), মুক্তি পেয়েছে। রোলিং স্টোন ম্যাগাজিন একে পরবর্তীকালে বর্ষসেরা অ্যালবাম হিসেবে সম্মানিত করেছে।

ডিলানের প্রথমদিককার গানের কথা ছিল মূলত রাজনীতি, সমাজ, দর্শন ও সাহিত্যিক প্রভাব সম্বলিত। এগুলো তখনকার জনপ্রিয় ধারার কথিত নিয়ম বহির্ভূত ছিল এবং এ ধারার বিপরীত হিসেবে ধরা হত। নিজস্ব সঙ্গীত ধারা প্রসারের পাশাপাশি তিনি আমেরিকার বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী সঙ্গীতের প্রতি আকর্ষন অনুভব করেছেন। তিনি আমেরিকান লোকগীতি ও কান্ট্রি/ব্লুজ থেকে রক অ্যান্ড রোল, ইংরেজ, স্কটিশ, আইরিশ লোকগীতি, এমনকি জ্যাজ সঙ্গীত, সুইং, ব্রডওয়ে, হার্ডরক এবং গসপেলও গেয়েছেন।

ডিলান সাধারণত গিটার, কিবোর্ড এবং হারমোনিকা বাজিয়ে গান করেন। ১৯৮০ দশক থেকে কিছু সংগীতজ্ঞকে সঙ্গে নিয়ে তিনি নিয়মিত বিভিন্ন সঙ্গীত ভ্রমণ করে থাকেন যা তার ভাষায় ‘নেভার এন্ডিং ট্যুর’। তিনি প্রধান অনেক শিল্পীর সঙ্গে একত্রে কাজ করেছেন, যেমন, দ্য ব্যান্ড, টম পেটি, জোয়ান বায়েজ, জর্জ হ্যারিসন, দ্য গ্রেটফুল ডেড, জনি ক্যাশ, উইলি নেলসন, পল সিমন, এরিক ক্ল্যাপটন, প্যাটি স্মিথ, ইউ২, দ্য রোলিং স্টোনস, জনি মিচেল, জ্যাক হোয়াইট, মার্লে হ্যাগার্ড, নেইল ইয়ং, ভ্যান মরিসন, রিঙ্গো স্টার এবং স্টিভি নিকস। যদিও তার ক্যারিয়ারে গায়ক হিসেবেই তিনি বেশি পরিচিত এবং সফল হয়েছেন, তবে গীতিকার হিসেবেই তার অবদানকে বেশি মূল্য দেওয়া হয়।

তার রেকর্ডের ফলে তিনি গ্রামি এ্যাডওয়ার্ড, গোল্ডেন গ্লোব এবং একাডেমি পুরস্কার জিতেছেন এবং রক অ্যান্ড রোল হল অব ফেম, ন্যাশভিল সংরাইটার্স হল অব ফেম, ও সংরাইটার্স হল অব ফেম এ তার নাম অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। টাইম ম্যাগাজিনের প্রকাশিত বিংশ শতকের শ্রেষ্ঠ ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকায় তার নাম রয়েছে। ২০০৪ সালে রোলিং স্টোন ম্যাগাজিন প্রকাশিত সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ১০০ গায়ক তালিকায় দ্য বিটলসের পর বব ডিলান দ্বিতীয় অবস্থান দখল করেছেন। ১৯৯০ সালের জানুয়ারিতে ডিলানকে ফরাসি সংস্কৃতি মন্ত্রী জ্যাক ল্যাং কর্তৃক কমান্ডার দেস আর্টস এট দেস লেটার্স উপাধিতে ভুষিত করেছেন; ২০০০ সালে রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অব মিউজিক তাকে পোলার মিউজিক পুরস্কার প্রদান করে এবং ২০০৭ সালে ডিলানকে সংস্কৃতিতে প্রিন্স অব অস্ট্রিয়াস পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে। তিনি কয়েকবার নোবেল সাহিত্য পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন।