মেইন ম্যেনু

সাহিত্য হতে পারে দিন বদলের হাতিয়ার : একান্ত সাক্ষাতকারে নবীন লেখক সাদী

সাহিত্য জাতির দর্পন। সুস্থধারার সমাজ বির্নিমানে সাহিত্য রাখতে পারে যুগান্তকারী ভূমিকা। এই সাহিত্য আবার হতে পারে দিন বদলের হাতিয়ার। বর্তমানে সাহিত্য অঙ্গনে তরুণদের পদচারণা বেশ লক্ষণীয়। আবার পশ্চিমা অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে অনেক তরুণের কলম হয়ে উঠেছে প্রতিবাদী।

সম্প্রতি এ প্রযন্মের একজন তরুণ লেখক আকিদুল ইসলাম (সাদী) এর সাথে আওয়ার নিউজ বিডি’র বার্তা সম্পাদক আবু রায়হান মিকাইলের কথা হয়।

একান্ত আলাপচারিতায় উঠে আসে তরুণ প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করার মত কিছু কথামালা।

আকিদুল ইসলাম (সাদী) একজন সৌখিন লেখক। তিনি গল্প, কবিতার পাশাপাশি তিনি উপন্যাসেও রেখেছেন অসামান্য অবদান। কারণ, যে বয়সে তার মিশে যাওয়ার কথা ছিল পশ্চিমা সমাজের যুবকদের সাথে, ঠিক সেই বয়সে তিনি কলম ধরেছেন অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে। কলমকে নিয়েছেন দিনবদলের হাতিয়ার হিসেবে। লেখনীর মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলেছেন ঘুণেধরা সমাজের কথা।

লেখক পরিচিতি : মাগুরা জেলার উপর দিয়ে এঁকেবেঁকে বয়ে গেছে নবগঙ্গা নদী। তারাই কুল ঘেসে অবস্থিত আলোকদিয়া গ্রাম। যে গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন বাংলাদেশের অন্যতম কবি, লেখক ও বহু গ্রন্থ প্রণেতা “সৈয়দ আলী আহসান”। উক্ত গ্রামেই এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তরুণ কবি ও লেখক আকিদুল ইসলাম সাদী।

আওয়ার নিউজ বিডি’র পাঠকদের জন্য তার সাথে একান্ত আলাপচারিতার কথামালা এবার উপস্থাপন করা হলোঃ

আওয়ার নিউজ বিডি : আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : ওয়া আলাইকুমুস সালাম৷ আলহামদুলিল্লাহ, ভাল আছি৷ আপনি কেমন আছেন?

আওয়ার নিউজ বিডি : হ্যাঁ, আমিও ভাল আছি। আওয়ার নিউজ বিডি’র পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা নিন
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : আওয়ার নিউজ বিডিকেও আমার পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা!

আওয়ার নিউজ বিডি : লেখালেখির জগতে কখন, কিভাবে প্রবেশ ঘটলো আপনার?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : লেখালেখি জগতে প্রবেশের সময়ক্ষণ মনে নেই৷ তবে যেভাবে এসেছি তা মনে আছে৷ আমি যখন মাদরাসায় প্রথম পা রাখি৷ সেদিন আমার শ্রদ্ধেয় উস্তাদ মুফতি খবিরুল্লাহ সাহেব উপস্থিত ছাত্রদেরকে যার যার মত করে কিছু লেখতে বললেন৷ সবাই লিখল৷ অামি লিখেছিলাম, বাসা থেকে আসার সময় মায়ের দেওয়া উপদেশগুলো৷ হুজুর লেখাটি দেখে খুবই খুশি হয়েছিলেন৷ অতপর একদিন তিনি আমাকে ডেকে বললেন‚ আকিদুল তোমার লেখার ক্যাটাগরি খুব ভাল৷ তুমি যদি চেষ্টা কর তাহলে হয়তো বা অাল্লাহ তায়ালা তোমার কলম দ্বারা ইসলাম ও জাতির অনেক খেদমত নিবেন৷ এরপর থেকেই আমার যাত্রা শুরু৷

আওয়ার নিউজ বিডি : আপনার প্রথম রচিত লেখা কী?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : আমার রচিত প্রথম লেখা একটি কবিতা৷ যদিও সেটি ছিল একটি প্রেমের কবিতা৷

আওয়ার নিউজ বিডি : প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থ কোনটি?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : আমার প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থ হল “কবিতার মেলা” নামক একটি কবিতার বই৷

আওয়ার নিউজ বিডি : লেখালেখির জগতে সবচেয়ে বেশি কার অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : লেখালেখির জগতে সবচেয়ে বেশি অনুপ্রেরণা পেয়েছি শ্রদ্ধেয় বড় ভাই রবিউল ইসলামের কাছ থেকে৷ যিনি আমার কোন আবদার পূরণে আজও পর্যন্ত না সূচক শব্দ ব্যবহার করেন নি৷

আওয়ার নিউজ বিডি : আপনি কোন ধরণের লেখা লিখতে পছন্দ করেন?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : ইসলামকে অক্ষুণ্ণ রেখে উপন্যাস লেখতে অনেক বেশি পছন্দ করি৷

আওয়ার নিউজ বিডি : আপনার ছেলেবেলার জীবন সম্পর্কে পাঠকদের কিছু বলুন
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : ছোট বেলার তেমন কোন স্মরণীয় কাহিনী নেই। তবে একবার আমি খেলার সাথীদের সাথে বেরাচ্ছিলাম৷ তখন হয়তো বা আমার বয়স সম্ভবত পাঁচ বছর৷ খেলার সাথীরা সবাই লাউয়ের ডগা দিয়ে বিড়ি বানিয়ে খাচ্ছে৷ তারা আমার হাতেও একটা দিছে৷ আমি তাকিয়ে সেটি দেখছি৷ কী আছে এর মধ্যে! কেনই বা ওরা খাচ্ছে! এমনভাবে আশ্চর্য হয়ে ভাবছিলাম৷ এমন সময় পিছন থেকে আমার মা এসে চড় মেরে দিলেন৷ খুবই ব্যাথা লেগেছিল৷ অামি কেঁদে দিয়ে বললাম‚ আম্মা আমিতো এটা খাচ্ছি না? আমাকে কেন মারলে? মা বললেন‚ যদি চড়টা না মারতাম তাহলে আজ হাতে নিয়েছ কাল মুখে দিতে দিধাবোধ করতে না৷ আর এভাবেই ধুমপানের সুচনা ঘটবে৷

আওয়ার নিউজ বিডি : আপনার প্রথম লেখা প্রকাশিত হওয়ার পর কেমন অনুভূতি ছিল?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : আসলে আমি এতটা খুশি হয়েছিলাম যে‚ বলে বুঝাতে পারব না৷

আওয়ার নিউজ বিডি : সাহিত্য দিন বদলের ক্ষেত্রে কি ধরণের ভূমিকা রাখতে পারে বলে আপনি মনে করেন?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : আমি মনে করি দিন বদলের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় ভুমিকাই হল সাহিত্যের৷ তবে সেটা হতে হবে সুস্থ ও ইখলাস পূর্ণ সাহিত্য৷ কারণ সাহিত্যের মাধ্যমেই ফুটে ওঠে সভ্যতা ও সমাজের বাস্তব চিত্র৷ যা হয় দিন বদলের পাথয়৷

আওয়ার নিউজ বিডি : লেখালেখির জগতে এসে কোন ধরণের আত্মত্যাগ আপনার বেশি স্বীকার করতে হয়েছে?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : লেখালেখি জগতে এসে তো নিন্দুকের নিন্দার মুখে পড়তেই হয়েছে। তারপর অর্থনৈতিক ভাবেও অনেক আত্মত্যাগ স্বীকার করেছি৷ যেমন ধরেন…আমার ভাইয়া আমাকে নাস্তা করার জন্য টাকা দিত৷ আমি তা দিয়ে নাস্তা না করে বিভিন্ন পত্রিকায় লেখা পাঠাতাম৷ আমার প্রথম বই বের হওয়ার সময়ও এই একই ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছে৷ তাওবা করা সেই মেয়েটিও একই ভাবে প্রকাশ করেছি৷ অর্থনৈতিক ভাবে আমি এখনও সাবলম্বি নয়৷ যার কারণে অনেক কিছু মন চাইলেও করতে পারি না৷ তবে ইনশা আল্লাহ এখন আশা ছাড়ি নাই‚ বাস্তবায়নের চেষ্টায় আছি৷

আওয়ার নিউজ বিডি : আপনার সম্প্রতি প্রকাশিত “তওবা করা সেই মেয়েটি” উপন্যাসটি সম্পর্কে সংক্ষেপে পাঠকদের কিছু বলুন।
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : সেটি একটি মজার উপন্যাস৷ যার মধ্যে রয়েছে আনন্দ‚ শিক্ষা ও কিছুটা বিরহ৷ আশা করি পাঠক মহল পড়লেই তা বুঝতে পারবে৷

আওয়ার নিউজ বিডি : পরবর্তীকালে আপনার কোন গ্রন্থগুলো প্রকাশের অপেক্ষায় আছে?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : হ্যাঁ আছে৷ কোরআন ও সায়েন্সের উপর লেখা একটি বই৷ নাম হল কোরআন বনাম সায়েন্স’র বিস্ময়কর তথ্য৷

আওয়ার নিউজ বিডি : আপনার জীবনের সবচেয়ে বড় স্বপ্ন বা একটি ইচ্ছার কথা পাঠকদের সাথে একটু শেয়ার করুন।
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : আমার জীবনের বড় স্বপ্ন হল…আমার জেলায় অনেক বড় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা৷ তার মধ্যে একটি বিভাগ থাকবে ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি মাতৃভাষার চর্চা৷ এবং ফাইভ পর্যন্ত এমন করব‚ যেন একটি বাচ্চা আমার প্রতিষ্ঠানে ঐ পর্যন্ত পড়ে মাদরাসায়ও পড়তে পারে আবার ইচ্ছা করলে স্কুলেও পড়তে পারবে৷ ইনশা আল্লাহ।

আওয়ার নিউজ বিডি : বর্তমান অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে একজন লেখখের কলম কী ধরণের ভূমিকা রাখতে পারে?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : বর্তমান অপসাংস্কৃতির বিরুদ্ধে একজন লেখকের কলম অপরিসীম ভুমিকা রাখতে পার৷ কেননা বাতিলের বিপক্ষেই হক্ব৷ তেমনি ভাবে অপসাংস্কৃতির বিরুদ্ধে সুস্থ সাংস্কৃতি থাকতেই হবে৷ অার এই সুস্থ সাংস্কৃতি ফুটিয়ে তুলতে একজন লেখকের কলম অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে৷

আওয়ার নিউজ বিডি : একটা সমাজের প্রতি লেখকের কি ধরণের দায়বদ্ধতা থাকে বলে আপনি মনে করেন?
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : একটি সমাজের প্রতি লেখকের অনেক বড় ধরণের দায়বদ্ধতা থাকে বলে আমি মনে করি৷ কারণ একজন লেখকের কলমে ফুটে ওঠে ভাল খারাপ সবই৷ আর লেখকরা হলেন সমাজের মুখপত্র৷ সুতরাং জাতি তাদের দ্বারা ভাল কিছু এবং সঠিক পথের দিশা অাশা করে থাকে৷

আওয়ার নিউজ বিডি : সর্বশেষ আওয়ার নিউজ বিডি’র পাঠকদের জন্য আপনার কিছু বলার থাকলে বলতে পারেন।
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : সর্বশেষ আমি আওয়ার নিউজ বিডির পাঠকদের উদ্দেশ্যে বলব- সাহিত্য মানুষের মনের খোরাক৷ সেটি পাল্টে দিতে পারে মানুষের জীবন ও সমাজের অবকাঠাম৷ তবে তা হতে হবে সুস্থ সাহিত্য৷ সকলে সুস্থ সাহিত্য চর্চায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করুন৷ ইনশা আল্লাহ এর দ্বারা সকলেই উপকৃত হবে৷

আওয়ার নিউজ বিডি : ধন্যবাদ, দীর্ঘক্ষণ আওয়ার নিউজ বিডিকে আপনার মূল্যবান সময় দেওয়ার জন্য।
আকিদুল ইসলাম (সাদী) : আপনাকেও ধন্যবাদ। ভুল ত্রুটি হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। বিদায় বেলা সকালের প্রতি আমার সালাম রইল।