মেইন ম্যেনু

সিএনজি চালককে ধাওয়া দিয়ে ধরলেন মেয়র

চট্টগ্রাম : কাজীর দেউড়ি এলাকার ব্যস্ত রাজপথ, তবে মঙ্গলাবার দুপুর বেলার একটি দৃশ্যে সবার চোখ আটকে যায়। পুলিশ প্রটৌকল নিয়ে একটি গাড়ির বহর ধাওয়া দিচ্ছিল সামান্য একটি সিএনজি অটোরিকশাকে! তাও আবার যে সে নয়, স্বয়ং চট্টগ্রামের নগরপিতা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

যার নাম-ডাক আর প্রভাবের কথা সকলেরই জানা। আর সেখানে সামান্য সিএনজি অটোরিকশা চালককে কেন তিনি ধাওয়া করছেন? এমন প্রশ্নের উত্তরটা শুনি মেয়রের ব্যক্তিগত সহকারি (মিডিয়া) উজ্জল দত্তের মুখে।

তিনি বলেন, ‘দুপুরে মেয়র মহোদয় কর্ণেল হাটের একটি অনুষ্টানে অংশ নিয়ে তার গাড়ি বহর নিয়ে সিআরবি হয়ে আন্দরকিল্লা সিটি করপোরেশনে ফিরছিলেন। এসময় এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংল্গ্ন হল টুয়েন্টিফোরের সামনে একটি সিএনজি অটোরিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে আরেকটি (চট্টমেট্টো-থ-১২-১৮৯১) সিএনজি অটোরিকশা পালিয়ে যেতে উদ্যত হয়। এসময় গুরুতর আহত হন দুর্ঘটনা কবলিত অটোরিকশার চালক সাইফুল। এই দৃশ্য মেয়র দেখা মাত্রই পলায়নরত সিএনজি অটোরিকশা চালককে ধরার নিদেশ দেন।

তারপর মেয়রের প্রটৌকলে থাকা পুলিশের গাড়ি ওই সিএনজি অটো চালককে ধাওয়া করে। এসময় মেয়রের গাড়িটি অটোরিকশাকে ধাওয়া করে। এরই মধ্যে অটোরিকশাটি স্টেডিয়াম, কাজির দেউড়ি, বিএনপি অফিস হয়ে নুর আহম্মদ সড়কের লাভলেইন চলে আসে। সেখানে এসেই অবশেষে ধরা পড়েন পালিয়ে যাওয়া সিএনজি অটোরিকশা চালক মিলন।

কোতয়ালী থানার এসআই মোস্তফা কামাল বলেন, ‘মেয়র মহোদয় ধাওয়া দিয়ে এক অটোরিকশা চালককে ধরেন। এসময় তিনি কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তার কাছে তাকে সোপর্দ করেন। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এর আগে গতকাল সোমবার নগরীর গণিবেকারি মোড়ে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত এক শিশু ও তার মাকে নিজ প্রটোকলের গাড়িতে তুলে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পৌছে দেন মেয়র।