মেইন ম্যেনু

সিপি গ্যাং সদস্য গ্রেফতার

বিতর্কিত অনলাইন গ্রুপ সিপি গ্যাং’র রামপুরার কার্যালয়ে মঙ্গলবার ভোরে অভিযান চালিয়ে পুলিশ গ্রেফতার করেছে অরূপ রতন নামে একজন অনলাইন অ্যাক্টিভিস্টকে। তথ্য প্রযুক্তি আইনে তাকে গ্রেফতারের পাশাপাশি পুলিশ ওই অফিসের কয়েকটি কম্পিউটার ও বেশকিছু নথিপত্র জব্দ করেছে।

গণম্যাধমে তীব্র নিন্দা ও সমালোচনার মুখে সরকার সিপি গ্যাং’র চার লাখ টাকা অনুদান বাতিলের পর পরই তাদের কার্যালয়ে এই অভিযান চালানো হলো। অনলাইন এই গ্রুপটির বিরুদ্ধে যথেচ্ছ গালাগাল, কুরুচিপূর্ণ ও মানহানিকর বক্তব্যর পাশাপাশি সাইবার অপরাধের বিস্তর অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, রাজশাহীর চারঘাট মডেল থানায় গত ২৫ মে দায়ের করা একটি মামলায় সিপি গ্যাং সদস্য অরূপ রতনকে গ্রেফতার করা হয়। জনৈক তাপস কুমার সরকার বাদী হয়ে এই মর্মে অভিযোগ করেন যে, আসামী অরূপ রতন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মানহানিকর বক্তব্য দিয়ে তাকে নিগৃহীত করে চলেছেন।

চারঘাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন এ খবররের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ওসি আলমগীর বলেন, ‘চারঘাট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) খাইরুল ইসলাম মঙ্গলবার ভোর পাঁচটার দিকে ঢাকার রামপুরা এলাকায় অভিযান চালান সিপি গ্যাং কার্যালয়ে। অভিযু্ক্ত সিপি গ্যাং সদস্য অরূপ রতনকে গ্রেফাতার, কয়েকটি কম্পিউটার ও কিছু কাগজপত্র জব্দ করা হয়।’

এসআই খাইরুল ইসলামকে উদ্ধৃত করে ওসি আলমগীর হোসেন আরো বলেন, ‘এসআই খাইরুল আমাকে টেলিফোনে জানিয়েছেন, তিনি আসামী ও মামলার আলামতসহ ঢাকা থেকে রাজশাহী রওয়ানা দিয়েছেন। তিনি রাজশাহীতে এসে পৌঁছালে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে।’

মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি বলে দাবিদার সিপি গ্যাং’র কাছে অনলাইনে নিগৃহীত হয়েছেন মুক্তিযুদ্ধেরই পক্ষের বুদ্ধিজীবী, অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট, নারী সাংবাদিক– এমন অভিযোগ আছে। সিপি গ্যাং’র কয়েকজন সদস্যর কয়েকটি ছবির তুলে প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকনও আলোচনার বিষয়বস্তু হন।

পুলিশ জানিয়েছে, সাইবার অপরাধে গ্রেফতারকৃত অরূপ রতনের বাড়ি মৌলভীবাজারে শ্রীমঙ্গলে। গত বছর সিপি গ্যাং প্রোডাকশন থেকে ‘বিজয়ে পথে’ নামে একটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র নির্মাণের সঙ্গে তিনি জড়িত ছিলেন।

এছাড়া অরূপ রতন ফেসবুকে বিভিন্ন সময়ে গণসংহতি আন্দোলনের সম্বয়ক জোনায়েদ সাকী, সাংবাদিক ও কথা সাহিত্যিক আনিসুল হক, তারকা ব্লগার অমি রহমান পিয়াল, আসিফ মহিউদ্দীন প্রমুখকে নিগৃহীত করার পাশাপাশি ফটোশপে মানহানিকর ছবি তৈরি করে প্রকাশ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

CP-Gang

সিপি গ্যাং সদস্যের গ্রেফতারের খবরে অনলাইন অ্যাক্টিভিস্টরা সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ফেসবুক, টুইটারসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় থেকে সম্প্রতি সিপি গ্যাং চার লাখ টাকা অনুদান পাওয়ার পর এ নিয়ে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বয়ে যায় কঠিন সমালোচনার ঝড়। প্রশ্ন ওঠে যথেচ্ছ গালিগালাজ, কুরুচি ভাষা ব্যবহার ও সাইবার অপরাধে অভিযুক্ত সিপি গ্যাংয়ের যোগ্যতা নিয়ে।

cp

সমালোচনার মুখে সোমবার তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘সিপিগ্যাং সম্পর্কে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় নেতিবাচক সংবাদ পরিবেশিত হওয়ায় উক্ত অনুমোদন (অনুদান) বাতিল করা হয়েছে। ফলে উক্ত প্রতিষ্ঠানকে কোনো অনুদান প্রদান করা হয়নি’।