মেইন ম্যেনু

সিরিয়ায় যুদ্ধ করছে রাশিয়ার সেনারা

সিরিয়ায় বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযানে আসাদ বাহিনীর সঙ্গে যোগ দিয়েছে রাশিয়ার সেনাবাহিনী। সিরিয়ার রাজনৈতিক ও সামরিক পরিস্থিতির সঙ্গে পরিচিত লেবাননের তিনটি সূত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বুধবার এ তথ্য জানিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্ররা সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে রাশিয়ার সেনা অংশগ্রহণের সুস্পষ্ট তথ্য জানিয়েছে। তবে এদের মধ্যে একটি সূত্র জানিয়েছে, আসাদ বাহিনীতে কর্মরত রাশিয়ার সেনাদের সংখ্যা খুবই কম।

এর আগে চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, সিরিয়ায় রাশিয়া দুটি ট্যাঙ্ক নামানোর জাহাজ, সামরিক পণ্যবাহী বিমান ও স্বল্পসংখ্যক স্থলসেনা পাঠিয়েছে।

লেবাননের দুটি সূত্র জানিয়েছে, রাশিয়ানরা সিরিয়ায় দুটি সামরিক ঘাঁটি তৈরি করছে। এগুলোর একটি উপকূলের কাছাকাছি ও অপরটি ভূখন্ডের ভেতরে, যেখান থেকে অভিযান পরিচালনা করা হতে পারে।

একটি সূত্র বলেন, ‘ রাশিয়ানরা আর উপদেষ্টা হিসেবে নেই। তারা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

ভূমধ্যসাগরে রাশিয়ার একমাত্র নৌঘাঁটিটি রয়েছে তারতৌস এলাকায়, যেটি সিরিয়া উপকূলে অবস্থিত। আর এর দখল এখনও আসাদের হাতেই রয়েছে। এই নৌঘাঁটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আসাদকে সহযোগিতা করাই হয়তো রাশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ সামরিক কৌশল।

আরেকটি লেবানিজ সূত্র জানিয়েছে, যুদ্ধে রাশিয়ার সেনাদের উপস্থিতি অনেক কম। তিনি বলেন, ‘ তারা অনেক কম সংখ্যা দিয়ে শুরু করেছে। তবে বড় বাহিনী এখনো অংশ নেয়নি। সিরিয়ায় অনেক রাশিয়ানই অংশ নিচ্ছে তবে তারা এখনও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জোরোশোরে নামেনি।’

এক সিরীয় কর্মকর্তা বলেছেন, ‘ রাশিয়ার বিশেষজ্ঞরা সবসময়ই উপস্থিত রয়েছ। তবে গত বছর থেকে তারা অনেক বেশি হারে যোগ দিচ্ছেন।