মেইন ম্যেনু

প্রেম প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় এক ছাত্রীকে কুপিয়েছে ছাত্রলীগ নেতা (ভিডিও)

সিলেটে খাদিজা আক্তার নার্গিস নামে সরকারি মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে কুপিয়েছে এক ছাত্রলীগ নেতা। সিলেটের এমসি কলেজে পরীক্ষা দিতে এসে এ হামলার শিকার হয় ছাত্রীটি।

সোমবার বিকেলে এমসি কলেজ মসজিদের পেছনে এ ঘটনা ঘটে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় মেয়েটি বর্তমানে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৱসাধীন আছে। ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ করে এবং হামলাকারীকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের সোপর্দ করে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সিলেট সদর উপজেলার মোগলগাঁও ইউনিয়নের হাউসা গ্রামের মাসুক মিয়ার মেয়ে খাদিজা আক্তার নার্গিসের বাড়িতে গৃহশিক্ষক হিসেবে থাকত শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র ও শাবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল আলম। সেখানে থাকাকালে মেয়েটির কাছে প্রেম নিবেদন করে সে। নার্গিস বারবার প্রত্যাখ্যান করে।

বিকেলে পরীক্ষা দিয়ে বের হওয়ার পর এমসি কলেজ মসজিদের পেছনে মানুষের সামনে দা দিয়ে কোপাতে থাকে বদরুল। প্রত্যক্ষদর্শী লোকজন নার্গিসের চিৎকার শুনে এগিয়ে যায়। তারা নার্গিসকে সংকটাপন্ন অবস্থায় উদ্ধার করে এবং বদরুলকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে দেয়।

এ ব্যাপারে এমসি কলেজের মনোবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর সালেহ আহমদ বলেন, ‘কিছু ছাত্র এসে একটি মেয়েকে কুপিয়ে দুই টুকরো করে ফেলেছে বলে আমাদের জানায়। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ এসে হামলাকারী যুবককে জনতার কবল থেকে উদ্ধার করে। আমরা ওই মেয়েকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠাই।’

প্রেম সংক্রান্ত বিরোধের জেরে খাদিজার ওপর হামলা হতে পারে বলে জানিয়েছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি (উত্তর) জিদান আল মুসা। তিনি জানান, স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় হামলাকারীকে আটক করা হয়েছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানান, মেয়েটির অবস্থা সংকটাপন্ন। মাথায় গুরুতর জখম হয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন