মেইন ম্যেনু

সিলেটে নারী ছিনতাইকারীদের আস্তানা আলা উদ্দিনের কলোনী!

ঈদকে কেন্দ্র করে সিলেট নগরীর বিভিন্ন মার্কেটে নারী ছিনতাইকারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। প্রতিদিনই কোন না কোন মার্কেটে তাদের দ্বারা ছিনতাইয়ের শিকার হচ্ছেন ঈদ বাজারে কেনাকাটা করতে আসা ক্রেতারা। তবে ওই সব ছিনতাইকারীরর আস্তানা সিলেট নগরীর মেন্দিবাগস্থ আলা উদ্দিন ওরফে আলু মিয়ার কলোনীতে বলে জানা গেছে।

ইতোমধ্যে আলা উদ্দিনের কলোনীতে নারী ছিনতাইকারীদের আস্তানার সত্যতাও পাওয়া গেছে। গত এক সপ্তাহে নগরী থেকে তিন জন নারী ছিনতাইকারী ও চোর ধরে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছেন ব্যবসায়ীরা। ওই তিনজনেরই বসবাস মেন্দিবাগের আলা উদ্দিনের কলোনীতে। এমন তথ্য জানিয়েছেন- কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহমদ।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে নগরীর জিন্দাবাজারস্থ শুকরিয়া মার্কেট থেকে সোমা বেগম (২৭) নামের এক চোরকে ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেন। আটক সোমা বেগম সিলেট নগরীর মেন্দিবাগস্থ আলাউদ্দিন মিয়ার কলোনীর ভাড়াটে। এর আগে গত ২৫ জুন জিন্দাবাজার থেকে ওই কলোনির বাসিন্দা নারী চোর চক্রের দুই সদস্যকে আটক করে পুলিশ। তারা হলেন- পপি বেগম ও জামিলা বেগম।

এদিকে, নগরীর মেন্দিবাগস্থ আলা উদ্দিনের কলোনীর অবস্থান নতুন ব্রিজের দক্ষিণ পাশে। সুরমা নদীর পারে আলা উদ্দিন লম্বা একটি আধাপাকা ঘর রয়েছে। সেই ঘরের পাশে আরো একটি দুতলা বিশিষ্ট ভবনও রয়েছে। এছাড়াও একই এলাকায় আরো কয়েকটি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। গতকাল বিকালে মেন্দিবাগ এলাকায় গিয়ে এমন চিত্র দেখা গেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওইসব কলোনীতে নারী ছিনতাইকারী ও চিহিৃত নারী চোরের আস্তানা। সেখান থেকে তারা প্রতিদিন নগরীর বিভিন্ন মার্কেটে বা মাজারে এসে চুরি ও ছিনতাই করে থাকে।

জানা গেছে, নিরাপদে থাকার জন্য নারী চোর চক্রের সদস্যরা নগরীর মেন্দিবাগে বাসা ভাড়া নিয়েছে। কারণ সেখানে পুলিশ অভিযান চালালে নারী ছিনতাইকারীরা নৌকা দিয়ে নদী পাড়ি দিয়ে নিরাপদ স্থানে চলে যায়। এছাড়াও আলা উদ্দিনের কলোনীর দক্ষিণ দিকে নদীর পার দিয়ে উপশহরে যাওয়া যায় এবং উত্তর দিক দিয়ে নগরীর কালিঘাটে যাওয়া যায়। সব মিলিয়ে অপরাধীরের নিরাপদ আস্তানাই বলা যায় আলা উদ্দিনের কলোনী।

এ ব্যাপারে আলা উদ্দিন ওরফে আলু মিয়ার কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে সিলেট মহানগরীর অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার রহমত উল্লাহ বলেন, ‘সেই কলোনীতে বসবাসরত কারো বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ থাকলে সেখানে অভিযান করা হবে।’