মেইন ম্যেনু

সীমান্তে ভারতের সড়ক ব্যবহার করতে পারবে বিজিবি

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশকে সব ধরণের সমর্থন দেবে ভারত। প্রত্যন্ত সীমান্ত এলাকায় টহলের উদ্দেশ্যে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে (বিজিবি) ভারতের সীমান্ত সড়কও ব্যবহার করতে দেবে নয়াদিল্লি।

রোববার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কার্যালয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডেকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ তথ্য জানান।

সম্প্রতি তিন দিনের ভারত সফর শেষে দেশে ফিরেছেন মন্ত্রী। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোজাম্মেল হক খান এবং পুলিশ মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হকসহ উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ১৪ সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন মন্ত্রী।

বিজিবি মহাপরিচালক, কোস্ট গার্ড ও বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সংস্থার সদস্যরা প্রতিনিধিদলে অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। ভারত সফর শেষে শনিবার দেশে ফিরেছে প্রতিনিধিদল।

সফরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন। পরে ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আমন্ত্রণে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ সময় দুই দেশের প্রতিনিধিরা সীমান্ত হত্যা ও অবৈধ মানব পাচার বন্ধ, মাদক ও পণ্যের চোরাচালান এবং অবৈধ গরু পাচার ঠেকানো, সীমান্তে টহলসহ দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, বাংলাদেশের প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নেই এমন প্রত্যন্ত অঞ্চলে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে (বিজিবি) ভারতের সীমান্ত সড়ক ব্যবহার করতে দিতে রাজি হয়েছে নয়াদিল্লি সরকার। হঠাৎ কোনো দুর্ঘটনার সময় সীমান্ত এলাকায় চিকিৎসাসেবা দেবে বিজিবি। ভারত থেকে বাংলাদেশে অবৈধ মাদক পাচার বন্ধে বিজিবি ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে বলে জানান মন্ত্রী।