মেইন ম্যেনু

সুখের আশায় এবার মেয়েরা রোবটের সঙ্গে সেক্স করে কুমারীত্বও হারাতে পারে!

ব্রিটেনের মোটামুটি ২১ শতাংশ মানুষ (প্রতি ৫জনের মধ্যে ১জন) স্বীকার করেছেন যে, তারা স্বেচ্ছায় রোবটের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে ইচ্ছুক। এই সপ্তাহে প্রকাশিত এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ২,৮১৬জন যৌন সক্ষম ব্রিটিশ নাগরিক, যাদের বয়স ১৮ বা তার বেশি, তাদের মতে, রোবটের সাহচর্য ‘বেশি সুখকর’ হবে।

গবেষণায় অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের কাছে প্রশ্ন রাখা হয়, “রোবটের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার উন্নয়ন এবং মানুষের অনুকরণপ্রিয়তার মিথস্ক্রিয়া কি ইতিবাচক না নেতিবাচক?” তাতে ৫১ শতাংশ মানুষ একে ‘ইতিবাচক’ বলে উত্তর দিয়েছেন।

তারপর গবেষণা সংস্থা ভাউচার কোডস প্রো-এর দল পাঁচটি প্রশ্ন করে, যার উত্তরগুলো ছিল –

রোবট দিয়ে পরিষ্কার / কুক করুন – ৪৫ শতাংশ

রোবটের সঙ্গে কথোপকথন – ৪১ শতাংশ

রোবট দিয়ে নিজের কাজ করান – ৩৮ শতাংশ

রোবটের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক – ২১ শতাংশ

রোবটের সঙ্গে খেলা – ১২ শতাংশ

এই সমীক্ষা থেকে পাওয়া তথ্যমতে, গবেষকরা সেই অংশগ্রহণকারীদের (পুরুষদের এবং মহিলা উভয়কেই) জিজ্ঞাসা করেন, “কেন তারা একটি রোবটের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করতে চান?” উত্তরে ৭২ শতাংশ জানায়, “এই কাজে রোবট খুব ভাল হবে।” বাকি ২৮ শতাংশ ‘সুযোগ পেলে’ রোবট ব্যবহার করে দেখবেন – এমন মত দেন। মনোবিজ্ঞানী, ড. হেলেন ড্রিসকল বলেন, “যৌন প্রযুক্তি’ দিন দিন আধুনিকতর হচ্ছে।” সান্ডারল্যান্ড ইউনিভার্সিটি-এর ড. ড্রিসকল বলেন, “রোবোটিক্স , ইন্টারঅ্যাকটিভ, গতি সেন্সিং বা অনুভবনশীল প্রযুক্তি ‘যৌন খাতে’ সামনের কয়েক বছরের মধ্যে আরও বড় ভুমিকা রাখবে।” ভবিষ্যতে ‘সেক্স রোবট’ দিয়ে টিনএজাররা তাদের কুমারীত্বও হারাতে পারেন বলে ধারণা প্রকাশ করা হয়। গবেষকদের মতে, এইসবের মাধ্যমে যৌনতা সম্পর্কে একশ’ বছর আগের সামাজিক নিয়মের সুস্পষ্ট পরিবর্তন ঘটেছে।