মেইন ম্যেনু

সূচনা ইন পপি আউট

১৯৯৭ সালে মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘কুলি’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে অভিনয়ে আসেন জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পপি। এরপর অসংখ্য ব্যবসা সফল চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সর্বোচ্চ সম্মান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও একাধিকবার ঘরে তুলেছেন এই অভিনেত্রী।

ইদানিং নিয়মিত নাটক, টেলিফিল্মে দেখা গেলেও বেশ কিছুদিন ধরে পপিকে চলচ্চিত্রের ক্যামেরায় দেখা যাচ্ছে না। তাই স্বাভাবিকভাবেই দর্শক মনে প্রশ্ন জাগে তবে কি পপি চলচ্চিত্রকে বিদায় জানালেন? কিন্তু তাও পরিস্কার বোঝা যাচ্ছে না। কারণ মাঝে মধ্যে দু’একটি চলচ্চিত্রেও চুক্তিবদ্ধ হচ্ছেন ভক্তদের স্বপ্নের এই রাজকুমারী।

তারই ধারাবাহিকতায় পরিচালক জসিম উদ্দিনের নির্মিতব্য ‘দ্য আমেরিকান ড্রিম’ নামে একটি চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন পপি। তার বিপরীতে অভিনয়ের জন্য চলচ্চিত্রটিতে চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন সাইমন সাদিকও।

গত ৯ মার্চ চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হয়েছে। শুটিং শুরু হলেও এখন পর্যন্ত পপিকে ক্যামেরার সামনে দেখা যায়নি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ‘দ্য আমেরিকান ড্রিম’-এর ক্যামেরার সামনে পপি নয়, অন্য কাউকে দেখা যাবে। কারণ এ চলচ্চিত্র থেকে পপিকে বাদ দেওয়া হয়েছে। পপির পরিবর্তে এতে যোগ দিয়েছেন নবাগত নায়িকা সূচনা আজাদ।

এ প্রসঙ্গে নির্মাতা জসিম উদ্দিন বলেন, ‘বাংলাদেশ ও আমেরিকাতে শুটিং হবে ‘দ্য আমেরিকান ড্রিম’ চলচ্চিত্রের। সেভাবেই পপিকে চুক্তিবদ্ধ করেছিলাম। দু’দেশেই পপির শিডিউল নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কাজ শুরুর আগে পপির সাথে সেল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন না। এমনকি তার বাসায় গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। এদিকে আমেরিকাতে যাওয়ার সময়ও হয়ে আসছে। তাই বলতে পারেন, বাধ্য হয়েই পপিকে বাদ দিতে হলো। পপির পরিবর্তে সূচনা আজাদ নামে নতুন একজন নায়িকা নিয়েছি। এরইমধ্যে সূচনা শুটিংয়ে অংশ নিয়েছে। আশা করছি, বাংলাদেশে শুটিংয়ের অংশ কয়েকদিনের মধ্যেই সম্পন্ন হবে। আর সূচনা সম্বন্ধে এক কথায় বলব, নতুন হিসেবে যথেষ্ঠ ভালো অভিনয় করছে।’

এ চলচ্চিত্র প্রসঙ্গে সূচনা আজাদ বলেন, ‘এটা আমার প্রথম চলচ্চিত্র। এর আগে আমি র‌্যাম্প এবং বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করেছি। কাজের মধ্যে নিজেকে শতভাগ মেলে ধরার চেষ্টা করছি। কতটুকু পারছি, তা এখনি বলতে পারব না। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, যেন ভালো কিছু করতে পারি।’