মেইন ম্যেনু

সৃজনশীল পদার্থবিজ্ঞান এবং সৃজনশীল বই

বর্তমান সরকার শিক্ষায় অভাবনীয় পরিবর্তন সাধিত করেছেন। তার মধ্যে সৃজনশীল পদ্ধতি অন্যতম। সৃজনশীল পদ্ধতি অবশ্যই ভালো একটি পদ্ধতি। কিন্তু সব বিষয়ে কি সৃজনশীল প্রযোজন? বা সৃজনশীল করার মতো যথেষ্ট প্রশিক্ষন প্রাপ্ত শিক্ষক ও অবকাঠামো আছে কি ? সেই সকল বিষয়ে মধ্যে পদার্থ ও গণিত অন্যতম। এই বিষয় দুটি জন্মগত ভাবে সৃজনশীল। বরং বতর্মান সৃজনশীল অবস্থায় ছাএছাত্রী দের শুধু পদার্থে গণিত করলেই হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু পদার্থ বিজ্ঞানের একটি অবিচ্ছিন্ন অংশ সমীকরণ প্রতিপাদন। যেটি ছাত্রছাত্রী দের করার প্রযোজন হচ্ছে না। এতে তারা মূল পদার্থবিজ্ঞানের জ্ঞান থেকে দূরে সরে যাচ্ছে । সঙ্গে অপ্রযোজনীয় বহুনির্বাচলি প্রশ্ন পড়তে হচ্ছে । যার কোনো প্রযোজন আছে বলে আমার মনে হয়না। এরপর সবচেয়ে দুঃখ জনক একটি বিষয়ে কথা বলতে চাই ।তা হলো সৃজনশীল বিষয় সমূহের বই।বতর্মান বাজারে এতো প্রকাশনির বই আছে ছাত্রছাত্রী কোনটি পড়বে সেটি নির্বাচন করাই কঠিন । সবচেয়ে মজার বিষয় এক বইয়ের সাথে অন্য বইয়ের সব টপিকগুলোর মিল নাই । যার কারণে ছাত্রছাত্রীদের সব বই থাকলে সুবিধা হয়।আমার তো মনে হয় তাদের সাথে একপ্রকার ছলনাই করা হচ্ছে । এই রকম যদি হয় তাহলে গরিব ছাত্রছাত্রীর বিজ্ঞানে পড়া কঠিন হবে। তাই তাদের কথা বিবেচনা করে একটি নির্দিষ্ট বইয়ে যেন সব থাকে সেই ব্যবস্থা করা হোক। সঙ্গে পদার্থবিজ্ঞান থেকে বহুনির্বাচনি উঠে দেয়া হোক এবং পদার্থবিজ্ঞানের সৌন্দর্য সমীকরণ প্রতিপাদন (ঘ) নাম্বার প্রশ্নে দেয়া হোক।

লেখক:
তানভীর আহম্মেদ
রাণীনগর, নওগাঁ



« (পূর্বের সংবাদ)