মেইন ম্যেনু

সেই ফোনালাপে নূর হোসেনকে আশ্বস্ত করেছিলেন শামীম!

নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের প্রধান হোতা নূর হোসেনকে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ভারত থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। খুনের পর পরই তিনি সীমান্ত দিয়ে পালিয়ে যান।তার এই পালিয়ে যাওয়া নিয়েও তখন নানা কথা শোনা যায়।

বলাবলি হচ্ছিল, তাকে পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করেন নারায়ণগঞ্জের এক প্রভাবশালী নেতা।পরে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান ও নূর সোহেনের মধ্যে একটি ফোনালাপ ফাঁস হয়।এ নিয়ে তখন ব্যাপক হৈচৈ পড়ে যায়।হত্যার দুই দিন পর ২৯ এপ্রিল রাত সাড়ে নয়টার দিকে শামীম ওসমানকে ফোন করেন নূর হোসেন। দুই মিনিটের মতো কথা হয় তাঁদের মধ্যে৷পাঠকদের জন্য সেই ফোনালাপটি ফের তুলে ধরা হলো-

শামীম ওসমানকে ফোন করেন নূর হোসেন। তিনি ফোন ধরে বলেন, ‘খবরটা পৌঁছাই দিছিলাম, পাইছিলা?’ জবাবে নূর হোসেন বলেন, ‘পাইছি, ভাই।’ শামীম ওসমান বলেন, ‘তুমি অত চিন্তা করো না।’ নূর হোসেন এ সময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে শামীম ওসমানকে বলেন, ‘ভাই, আমি লেখাপড়া করিনি। আমার অনেক ভুল আছে। আপনি আমার বাপ লাগেন। আপনারে আমি অনেক ভালোবাসি, ভাই। আপনি আমারে একটু যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেন।’ জবাবে শামীম ওসমান বলেন, ‘এখন আর কোনো সমস্যা হবে না।’ শামীম ওসমান ‘গৌর দা’ বলে এক লোকের সঙ্গে নূর হোসেনকে দেখা করতে বলেন।

কথোপকথনের এই পর্যায়ে নূর হোসেনের কাছে শামীম ওসমান জানতে চান, কোনো সিল (সম্ভবত ভিসা) আছে কি না। সিল থাকার কথা জানিয়ে নূর হোসেন বলেন, ‘আছে আছে, সিল আছে, কিন্তু যামু ক্যামনে? যেভাবে বলল অ্যালার্ট (রেড অ্যালার্ট)।’ শামীম ওসমান বলেন, ‘তুমি আগাইতে থাক।’ নূর হোসেন তখন বলেন, ‘ভাই, তাহলে একটু খবর নেন। আমি আবার ফোন দেই।’

কথাবার্তার একপর্যায়ে শামীম ওসমান নূর হোসেনকে বলেন, ‘তুমি কোনো অপরাধ করো নাই। আমি জানি, ঘটনা অন্য কেউ ঘটাইয়া এক ঢিলে দুই পাখি মারতেছে।’ এ সময় শামীম ওসমান নূর হোসেনের কাছে জানতে চান, এই নম্বরটি (ফোন) নতুন কি না৷ নূর হোসেন ‘হ্যাঁ সূচক’ জবাব দেন৷ শামীম ওসমান বলেন, তিনি নূর হোসেনকে তাঁর আরেকটি নম্বর পাঠাবেন যোগাযোগের জন্য৷

তদন্তকারী সংস্থার সূত্র দাবি করছে, এরপর নূর হোসেন দেশ ছাড়েন। আগের দিন ২৮ এপ্রিলও নূর হোসেন সারা দিন সিদ্ধিরগঞ্জে ছিলেন। ২৮ এপ্রিল গভীর রাতে ঢাকায় চলে আসেন এবং গুলশান এলাকায় অবস্থান করেন। ২৯ এপ্রিল রাত নয়টায় ধানমন্ডিতে অবস্থান করার সময়ই শামীম ওসমানের সঙ্গে কথা বলেন নূর হোসেন। এর পর থেকে তিনি নিজের ফোন বন্ধ রাখেন। ধারণা হচ্ছে, ওই রাতেই তিনি ভারতে চলে যান৷ঢাকাটাইমস