মেইন ম্যেনু

সেই মুসলিম বালককে হোয়াইট হাউজে আমন্ত্রণ ওবামার

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সেই মুসলিম বালককে হোয়াইট হাউজে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, বাড়িতে তৈরি ঘড়ি স্কুলে নিয়ে যাওয়ার জন্য পুলিশ যাকে গ্রেফতার করেছিল।

টেক্সাসের আর্ভিংয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র আহমেদ মোহাম্মদ সোমবার তার তৈরি একটি ঘড়ি স্কুলে নিয়ে গেলে সেটি বোমা মনে করে শিক্ষকরা তাকে পুলিশে সোপর্দ করে।

এক টুইটার বার্তায় ওবামা লিখেছেন, ‘ কুল ক্লক, আহমেদ। এটাকে হোয়াইট হাউজে নিয়ে আসতে চাও? আমাদের উচিত তোমার মত শিশুদের বিজ্ঞানকে ভালোবাসতে উৎসাহিত করা। এতেই তো আমেরিকা মহান হবে।’

স্কুলের একটি বিজ্ঞান প্রকল্পের জন্য ১৪ বছর বয়সী শিশুটিকে কর্তৃপক্ষ গ্রেপ্তার করার পর হাজার হাজার লোক সামাজিক গণমাধ্যমে এর তীব্র নিন্দা জানায়।

টুইটারে তার সমর্থনে একটি হ্যাশট্যাগে ৫ লাখ লোক সমর্থন দিয়েছে।

পুলিশ বলছে, মোহাম্মদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ দায়ের করা হবে না। কিন্তু সে সাংবাদিকদের জানিয়েছে যে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তাকে স্কুল থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

অনেকেই বলছেন, মুসলিম হওয়ার কারণেই মোহাম্মদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম মুসলিম সংগঠনও একই কথা বলছে।

কাউন্সিল অন আমেরিকান-ইসলামিক রিলেশন্স (কেয়ার) এর মুখপাত্র ইব্রাহীম হুপার আলজাজিরাকে বলেন, স্কুল ছাত্রটির এই গ্রেপ্তারে তার ধর্ম ‘অবশ্যম্ভাবী’ ভূমিকা রেখেছে।

‘আমরা বিশ্বাস করি ছাত্রটি মুসলিম না হলে তাকে গ্রেপ্তার করা হতো না…এটা ক্রমবর্ধমান ইসলামভীতির একটি লক্ষণ যে বিজ্ঞান প্রকল্পের জন্য ১৪ বছর বয়সী একটি শিশুকে হাতকড়া পরিয়ে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে,’ বলছিলেন হুপার।

সুদানি বংশোদ্ভূত শিশুটি জন্য আমেরিকার বহু বিশিষ্ট নাগরিকও সমর্থন জানিয়েছেন।

সূত্র: আলজাজিরা